চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: মহা ধুমধাম আর বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়ে গেল রংপুরের সিংহ বাদশা (নভ) ও চট্টগ্রামের সিংহী নোভার বিয়ে।

আজ বুধবার সকাল ১১টায় সিংহের খাঁচায় মাংস-কেক কেটে এবং বেলুন উড়িয়ে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করেন জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন। বিয়েকে ঘিরে চিড়িয়াখানার ফটক, ওয়াকওয়ে ও পশুপাখির খাঁচা রংবেরঙের বেলুন, ফেস্টুন ও জরি দিয়ে সাজানো হয়।

এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ড. অনুপম সাহা, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মমিনুর রশিদ, এডিসি শিক্ষা হাবিবুর রহমান, কবি অভীক ওসমান, সেলিনা শেলী, চিড়িয়াখানার সদস্য সচিব রুহুল আমীন, ডেপুটি কিউরেটর চৌধুরী মো. মনজুর মোরশেদসহ বিপুল সংখ্যক সাংবাদিক ও স্কুলশিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা সূত্রে জানা গেছে, ২০০৫ সালের ১৬ জুন চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় জন্ম নিয়েছিল সিংহ শাবক বর্ষা ও নোভা। দুই বোনের জন্মের কিছুদিন পর তাদের মা লক্ষ্মী এবং ২০০৮ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি বাবা রাজ মারা যায়। এরপর আর কোনো নতুন সিংহ চিড়িয়াখানায় আনা হয়নি। একই সঙ্গে চিড়িয়াখানায় আর কোনো পুরুষ সিংহ না থাকায় বর্ষা ও নোভা কুমারী থেকে যায়।

তাদের ঘর-সংসার করাও হয়ে ওঠেনি। এতদিন অনেক খোঁজখবর করেও উপযুক্ত পুরুষ সিংহ পাওয়া যায়নি। সম্প্রতি সংবাদপত্রের মাধ্যমে রংপুর চিড়িয়াখানায় দুটি পুরুষ সিংহ থাকার খবর পায় চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। এরপর বর্ষা ও নোভার মধ্য থেকে একটি রংপুর চিড়িয়াখানার সঙ্গে অদলবদল করার ব্যাপারে আলোচনার ভিত্তিতে সমঝোতায় উপনীত হলে বর্ষাকে গত ২৮ আগস্ট চট্টগ্রাম থেকে রংপুরে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে রাজার সঙ্গী হবে বর্ষা। বিয়ের আগে জিপিএইচ ইস্পাতের সৌজন্যে চিড়িয়াখানার নতুন ফটক উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক।