ডেস্ক রিপোর্ট: আগামী ৩০ নভেম্বর কাতারে অবৈধ অভিবাসীদের তিন মাসের সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ শেষ হবে। সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ শেষে অবৈধভাবে বসবাসের অভিযোগে আটক হওয়া অভিবাসীকে তিন বছরের জেল ও পঞ্চাশ হাজার কাতারি রিয়াল জরিমানা করার ঘোষণা দিয়েছে কাতার সরকার।

এমন অবস্থায়, আইনি জটিলতা এড়াতে নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যেই অবৈধ প্রবাসীদের কাতার ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

কাতারে অবৈধভাবে অবস্থান করা বিদেশিদের গত পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে পরবর্তী ৩ মাসের জন্য সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে দেশটির সরকার। যার মেয়াদ শেষ হবে আগামী ৩০ নভেম্বর। যেসব বিদেশি নাগরিক ২০০৯ সাল থেকে বেআইনিভাবে কাতারে অবস্থান করছেন, নির্ধারিত সময় সীমার মধ্যে কোন ধরনের আইনি বাধা ছাড়াই কাতার ছাড়তে পারবেন।

সাধারণ ক্ষমার সুযোগ কাজে লাগিয়ে অবৈধভাবে বসবাসরত বাংলাদেশি প্রবাসীদের দেশে ফেরত যাওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন কাতার কমিউনিটি নেতারা।

কাতার কমিউনিটি নেতা নজরুল ইসলাম বলেন, 'যেসব বাংলাদেশি অবৈধভাবে আছে এই সাধারণ ক্ষমার মধ্যেই তাদের দেশে যাওয়া উত্তম।'

সে সব অবৈধ বাংলাদেশি কাতার ছাড়তে চান তাদেরকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যেই কাতার ত্যাগ করতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসাদ আহমেদ বলেন, 'বাংলাদেশসহ অন্যান্য যেসব দেশের শ্রমিকরা কাতারে অবৈধভাবে আছেন তারা যদি নিজ নিজ দেশে চলে যান তাহলে কাতার কোন বাধা দেবে না এবং তাদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপও নেবে না। তারা আবার বৈধ শ্রমিক হিসেবে যে কোন সময় কাতারে প্রবেশ করতে পারবেন।'

কাতারে অবস্থানরত অবৈধ বিদেশি নাগরিকদের নিজ নিজ দেশের দূতাবাস থেকে ট্রাভেল পারমিট ও বিমানের টিকেটসহ প্রতি রোববার থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টার মধ্যে সেলিয়া সফর জেল "সার্চ এন্ড ফলোআপ ডিপার্টমেন্টে" যোগাযোগ করতে বলেছে কাতার কর্তৃপক্ষ।