banglanewspaper

শীতকাল আসা মানেই, গায়ে রোদ লাগিয়ে কমলালেবু খাওয়া ৷ ভিটামিন সি যুক্ত কমলালেবু শরীরের পক্ষে খুবই উপকারি৷ বিশেষ করে যাদের ঠান্ডা লাগার ধাত রয়েছে বা ত্বকের অসুখে ভুগছেন তাদের জন্য কমলালেবু খুবই উপকারি একটা ফল ৷ তবে জানেন কি? 

শুধু কমলালেবুই নয়, কমলালেবুর খোসাতেও রয়েছে প্রচুর গুণ৷ কফ দূর করতে কমলালেবুর খোসা খুব কার্যকরী ৷ পাতলা করে কমলালেবুর খোসা ছিলে নিন৷ যেন নীচের সাদা অংশ না আসে ৷ মিহি করে গ্রেডারে ভালো করে ঘষে নিন৷ চা তৈরির সময় চা পাতার সঙ্গে এই কুচি ফুটিয়ে নিন ৷ একটু আদাও দিতে পারেন ৷ এটি নিয়মিত পান করলে, কফ দূর হবে৷ 

পেটের সমস্যা থেকে বাঁচতেও কমলালেবুর খোসা খুব কার্যকরী ৷ কমলালেবুর খোসা হজমের সমস্যা দূর করে ৷ মিহি করে কাটা কমলালেবুর খোসা মধু সঙ্গে মিশিয়ে খালি পেটে খেয়ে নিন৷ কমলালেবুর খোসাকে রোদে শুকিয়ে নিন ৷ শুকিয়ে গেলে গুঁড়ো করে নিন ৷ চা তৈরির সময় এই গুড়ো চায়ে মিশিয়ে খেয়ে নিন ৷ জলদি কাশি কমে যাবে ৷ 
 

গবেষণায় দেখা যায় কমলালেবুর খোসা কলেস্টেরল এবং ট্রাইগ্লিসেরাইড দ্রবীভূত পারে। ফলে যাদের উচ্চমাত্রায় কোলেস্টেরলের সমস্যা আছে এবং যারা ওজন কমাতে চান তাদের জন্য কমলার খোসা অনেক কার্যকরী। এছাড়া কমলার খোসায় একটি ফ্লেভোনয়েড রয়েছে যা ‘হেস্পিরিডিন’ নামে পরিচিত। এবং এটি কোলন ক্যান্সার এবং অস্টিওপরোসিস বিরুদ্ধে কাজ করে। 

কমলার খোসা গোসল এর পানিতে ব্যবহার করলে এটি অনিদ্রা দূর করে। খোসাগুলো কাঁটাচামচ দিয়ে ভালো করে কেঁচে নিন। তারপর গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। জলের তাপমাত্রা কুসুম গরম থাকতে থাকতে স্নান সেরে নিন।

ট্যাগ: