banglanewspaper

মার্কিনযুক্তরাষ্ট্রের এক বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা পত্র Msphere নামে এক জার্নালে এমনটাই জানিয়েছেন চিকিৎসকরা৷

গবেষণা পত্রে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, এটিমএম মেশিন জীবাণুর আতুর ঘর ৷ এখান থেকেই জীবাণু এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ঘুরে বেড়ায়৷ চিকিৎসকরা বলছেন, এটিএম মেশিনের নম্বর প্লেটেই জন্ম নেয় জীবাণু৷

একটি এটিএম মেশিনে প্রতিদিনন লক্ষ লক্ষ লোক টাকা তুলতে আসছেন, আর তারা ব্যবহার করছেন এটিএম প্যাড৷ আর এর থেকেই জন্মাছে নানা জীবাণু।

শুধু যৌনরোগ নয়। ডাক্তাররা বলছেন, এর থেকে হতে পারে নানা পেটের রোগ, এমনকী স্কিন ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনার কথাও বলছেন ডাক্তাররা৷
 

টেলিভিশন, বিশ্রামঘর, রান্নাঘর, বালিশ, কাঁটাযুক্ত মাছ, শামুক, মুরগি, নষ্ট হয়ে যাওয়া দুগ্ধজাত সামগ্রীর মধ্যে যে ধরনের জীবাণু মেলে, ঠিক একই গোত্রের জীবাণুর আশ্রয় এটিএম কি প্যাডে। চিকিৎসকরা বলছেন, নিত্যদিনের কাজ যখন আমরা সারি, তখনও জীবাণু আমাদের শরীরে প্রবেশ করে। - যেমন ধরা যাক কেউ একজন খাবার খেলেন। খাবার থেকে তার শরীরে চলে গেল জীবাণু। তারপর তিনি ATM-এ গেলেন টাকা তুলতে। তার হাতের জীবাণু চলে গেল এটিএম কি প্যাডে। তারপর সেখানে আগে থেকেই যে সব জীবাণুরা ছিল, পরে অন্যকোনও গ্রাহক যখন এটিএম এ টাকা তুলতে গেলেন, তখন চলে গেল তাঁর শরীরে।

ট্যাগ: