banglanewspaper

জুলফিকার আলী: রাত ৯ টার দিকে দিনে সমস্ত কাজগুলো শেষ করে রুমে ফিরলাম। সারাদিন অনেক ব্যাস্ত থাকতে হয়। জীবন কি জিনিস সেটাও মাঝে মাঝে ভুলে যাই। বেশ কয়েকদিন মশারা অনেক জ্বালাতন করছে। তাই রুমে এসে দেরি না করে বাহিরে বের হলাম। শীতের ভাবটা একটু পরতে শুরু করছে। তাই বাহিরে হালকা ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা ভাব।রাস্তার ধার দিয়ে হাঠছি একা একা খারাপ লাগছে না ভালোই লাগছে।

কিছু দূর হাঠার পর একটা দোকান পেলাম কয়েল কেনার পর ভাবলাম আরেকটু হাঠি। প্রায় ১ মিনিট যাবার পর রাস্তার পাশে দেখলাম একটা বয়স্ক মানুষ বয়স আনুমানিক ৫৫ হবে ।কেন যেন আমার চোখের পলক ওনার দিকে পরার পর মনের ভিতর একটা কাঁপনি দিয়ে উঠল। আমি লক্ষ্য করলাম ওনার মুখটা অনেক ভারী হয়ে আছে।ভাবতে ভাবতে পাশ থেকে একটা আক্কেল ওনাকে বলল।

“ আজকে বিক্রি কেমন হল??” মানুষটা বলল “ সারাদিন বসতে দেয় না বাবা। আজকে মাল কিনতে পারি নাই” আমি খেয়াল করলাম ওনার চোখের কোনে জল । মানুষটার মুখের দিকে তাকিয়ে মনে হল । অনেক চাপা কষ্টি নিয়ে বসে আছেন। খুবই সামান্য একটা পানের দোকান জীবিকার জন্য পথের কোনে বসে আছেন।তারপর আমি কথা বললাম।

মানুষ টা বলল সে যে জাইগাই বসে তার দোকান টা চালাই তাকে ওখানে ঠিক মত বসতে দেয় না। ওনার দোকানেরে মূলধন হবে ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকা আজকে সারাদিন মালকিনতে পারে নাই গতকালের কিছু পান পরে ছিল সেইগুল সে বিক্রি করছে।একমুঠ চাল কিনবে বলে। একটু খাবে বলে। আজকে তার তেমন বিক্রি হয় নাই তাই চালও কিনতে পারে নাই।আমি বললাম এখনও বসে আছেন কেন সে বলল “দেখি বাবা আরেকটু”/ ।

আমি তার চোখের দিকে চেয়ে কেঁদে ফেললাম ।তার কথা গুলো শুনে মনে হল প্রতিটা কথা অনেক কষ্টের পাঁথর। আমাদের সমাজে হাজার হাজার টাকা কোটি কোটি টাকা নষ্ট করা হয় আয়েশের গা ভাসিয়ে। আর সামান্যে ১কেজি চাল। সামান্যে একটু স্বপ্ন আমাদের মত মানুষের পূরণ হতে অপেক্ষা করতে হয় সারাটা জীবন ।এই সমাজ ৫৫ বছর মানুষের জন্য কি করে।এই গণতন্ত্র আমাদের কি শিক্ষা দেয়।

রাস্তার পাশের মানুষটির মতই... হয়তো ১ কেজি চাল কেনার জন্যে অপেক্ষা।। হয়তো একটা চাকরি পাবার জন্যে দ্বারে দ্বারে ...যাওয়া ...রাজনীতি না করার জন্যে।

১কেজি চাল কেনার জন্যে।।

...সারাটা দিন অপেক্ষা করা।।

শুধু ১ কেজি চাল কেনার জন্যে... হয়তো আমাদের এই লেখাপড়াটা...... ?

লেখক: শিক্ষার্থী, রংপুর বিশ্ববিদ্যালয়।

(এ বিভাগে প্রকাশিত মতামত লেখকের নিজস্ব। বাংলাদেশ নিউজ আওয়ার-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে প্রকাশিত মতামত সামঞ্জস্যপূর্ণ নাও হতে পারে।)