banglanewspaper

উত্তরাধিকার বা অগ্রজগণের সান্নিধ্য বৈশিষ্ট্য অনুজ এবং সহযোগীদের মাঝে প্রবাহিত হবে এটাই স্বাভাবিক। বিজ্ঞানও তাই বলে যে বৈশিষ্ট্যের এই ক্রমধারা রক্ত প্রবাহের মতই শরীরে, মনে এবং কর্মে সঞ্চালিত হয়। সেই সূত্রে বেগম জিয়ার রাজনৈতিক অগ্রজ (!) জেনারেল জিয়াউর রহমান।

যার কাছ থেকে ফন্দি-ফিকির, তামাশা বিদ্যাসহ পাকিস্তান পন্থি আচরণের সকল বৈশিষ্ট্যেরই শিক্ষা-দীক্ষা পেয়েছেন এবং চর্চার মাধ্যমে নিজেকে নিয়ে গিয়েছেন অনন্য এক নিম্নগামী উচ্চতায়। ৭৫' এর পর ক্ষমতা দখল করে তা করায়ত্ব করার জন্যে জেনারেল জিয়া প্রায় দুবছরেরও বেশি সময় ধরে রাতের বেলা কারফিউ জারি করে রাখতেন। অর্থাৎ দেশের মানুষকে জিম্মি করে জোর করে সম্মতি আদায়ের একটা চেষ্টা ছিল তার।

বলা চলে স্বামীর নির্দেশিত পথেই চলছেন বেগম খালেদা জিয়া। ক্ষমতার আসনে আসীন হবার তাগিদে গত ২০১৩ সালের ২৮ জানুয়ারি থেকে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত অরাজকতা পূর্ণ পরিস্থিতি তৈরি করে দেশের মানুষকে জিম্মি করে রেখেছিলেন। টানা ৯২ দিন দেশের মানুষকে অবরুদ্ধ রেখে নিজের পালা পাণ্ডাদের দিয়ে জ্বালাও-পোড়াও করে পাঁচ শতাধিক তাজা প্রাণ কেড়ে নিয়েছেন। অগ্নিদগ্ধ করে মৃত্যু ঝুঁকিতে পাঠিয়েছেন অগণিতদের।

কোমলমতি শিক্ষার্থীরা তাদের মেধার মাপকাঠি মাপতে যেখানে পরীক্ষা নামক চিন্তায় চিন্তিত সেখানে তিনি তাদের (এসএসসি পরীক্ষার্থীদের) উৎকণ্ঠার মধ্য দিয়ে পরীক্ষা দিতে বাধ্য করেছেন। পরিবহন সন্ত্রাস চালানোর মধ্য দিয়ে মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম জমায়েত বিশ্ব ইজতেমায় আগমনরত মানুষগুলোকে ভুগিয়েছেন চরম ভোগান্তিতে। হঠকারী কর্মের দ্বারা রাষ্ট্রদ্রোহী ভাবনাকে জাহির করার মাধ্যমে বিশ্ব ইতিহাসে নজির সৃষ্টি করেছেন বেগম জিয়া।

দেশের যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে যেখানে যূথবদ্ধ জনতার নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা একের পর এক ইতিহাস রচনা করে চলেছেন সেখানে তাদের বাঁচাতে বিদেশি লবিগুলোতে ধরণা দিচ্ছেন বেগম জিয়া। জাতি হিসেবে আজ বাঙ্গালী বিশ্ব দরবারে মাথ উঁচু করে দাঁড়াবার প্রত্যয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে মেনে সামনের দিকে এগোতে চায়। তারা কোন দেশ বিরোধী পাপাত্মার রেখে যাওয়া ভ্রূণ কিংবা স্বজনের পক্ষে নেই।

যার প্রমাণ জাতি দিয়েছে বিগত বিগত জাতীয় নির্বাচনে। যূথবদ্ধ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ,বাঙ্গালীর সেই সৌন্দর্য যা প্রতিনিয়ত বিজয়ের পথকে সুগম করে। গত ২২ ডিসেম্বর ২০১৬ এর নাসিক নির্বাচন যার অন্যতম একটি দৃষ্টান্ত। দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যূথবদ্ধ বাঙ্গালী সমস্ত অপশক্তিকে প্রতিহত করে তাদের কাঙ্ক্ষিত বিজয়ের পথে এগিয়ে যাবে, প্রত্যাশা এখন এতটুকুই।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু

 

লেখক: হায়দার মোহাম্মাদ জিতু সাংগঠনিক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

(এ বিভাগে প্রকাশিত মতামত লেখকের নিজস্ব। বাংলাদেশ নিউজ আওয়ার-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে প্রকাশিত মতামত সামঞ্জস্যপূর্ণ নাও হতে পারে।)

ট্যাগ: