আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, মেধা, যোগ্যতা আর আচরণের মাধ্যমে ছাত্রলীগকে আকর্ষণীয় করতে হবে। অনুপ্রবেশকারীদের থেকে সাবধান থাকতে হবে। অনুপ্রবেশকারী ও পরগাছারাই ছাত্রলীগকে বিতর্কিত করেছে।

বুধবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজয় বাংলার পাদদেশে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে দেওয়া বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, নতুন বছরে আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদ। আমাদের এই চ্যালেঞ্জকে গ্রহণ করে দুর্নিবার গতিতে বাংলাদেশের উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে হবে। সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদ শক্ত হাতে দমন করার ঘোষণা দেন তিনি।
 
স্বাধীনতার ৪৫ বছর পরও বঙ্গবন্ধু বাংলার কালজয়ী কল্লোল- একথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজকে ছাত্রলীগের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সকলের স্বতঃস্ফুর্ত উপস্থিতি প্রমাণ করে আমরা মৃত্যুর মিছিলে দাঁড়িয়েও বলব আমরা ছাত্রলীগ।
 
স্বাধীন বাংলার স্বপ্নদ্রষ্টা জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সততার মডেল, রাজনৈতিক মডেল উল্লেখ করে তার আদর্শ অনুসরণের আহ্বান জানান তিনি।

ঐতিহ্যবাহী ছাত্রসংগঠন ছাত্রলীগের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধন করেন ওবায়দুল কাদের। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম হানিফ, দীপু মনি ও জাহাঙ্গীর কবির নানক, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আ. সোবাহান গোলাপ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান ও সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্সসহ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।  


 

এদিকে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীতের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন প্রধান অতিথি ওবায়দুল কাদের। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে আনন্দ র‌্যালি বের হয়।