ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় পণ্য পছন্দ হয়েছে; পকেটে টাকা নেই তাই কিনতে পারছেন না। অথবা টাকা বহনে ভয় পাচ্ছেন। তাদের জন্য সুখবর। মেলায় রয়ছে এটিএম বুথ ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সুবিধা। শুধু তাই নয়, মেলার স্টল মালিকদের জন্য রযেছে বিশেষ ব্যবস্থা। সারাদিনের বেচা-কেনার অর্থ সহজেই এসব ব্যাংকে জমা দিতে পারবেন। একইসঙ্গে ব্যাংকে হিসাব খোলা ও ঋণ আমানত সংক্রান্ত তথ্যসহ বিভিন্ন সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন এসব ব্যাংকের প্যাভিলিয়নে।

মাসব্যাপী ২২তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় ক্রেতা বিক্রেতা ও দর্শনার্থীদের আর্থিক লেনদেন সহজ ও নিরাপদ করতে প্রয়োজনীয় ব্যাংকিং সেবা দিচ্ছে সরকারি-বেসরকারি চারটি বাণিজ্যিক ব্যাংক। মোবাইল ব্যাংকিংসহ আর্থিক জোগানের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যাংকিং সেবা দিতে এটিএম বুথ ও প্যাভিলিয়ন স্থাপন করে অস্থায়ী শাখা করেছে ব্যাংকগুলো।

অংশগ্রহণ করা ব্যাংকগুলোর মধ্যে রয়েছে- রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, জনতা ব্যাংক এবং বেসরকারি ইসলামী ব্যাংক ও ডাচ বাংলা ব্যাংক। এছাড়াও রয়েছে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা প্রদানকারী সংস্থা ‘বিকাশ’। যার মাধ্যমে মোবাইলে অর্থ জমা, উত্তোলন এবং স্থানান্তর সুবিধা পাচ্ছেন গ্রাহক।

ব্যাংকগুলোর কর্মকর্তারা জানান, ক্রেতা-দর্শনার্থীদের লেনদেনের সুবিধার কথা চিন্তা করে সেবা দেয়া হচ্ছে। কেনাকাটা করতে চাহিদা মতো টাকা তোলা ও বিক্রেতাদের নগদ টাকা জমা নেয়া হচ্ছে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত। এসব শাখায় পণ্যের ভ্যাট পরিশোধ, এক ব্যাংক থেকে অন্য ব্যাংকে টাকা পাঠানোর মতো সেবাও পাওয়া যাচ্ছে।

পাশাপাশি এটিএম বুথের মাধ্যমে নগদ টাকাও তুলতে পারছেন মেলায় আসা ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। এছাড়াও নিজেদের নতুন পণ্যের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে ব্যাংকগুলো। মেলায় বিভিন্ন ব্যাংকিংসেবার মধ্যে এটিএম বুথ ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের প্রতি দর্শনার্থীদের বেশি আগ্রহ লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

মেলায় অংশ নেয়া বেসরকারি ইসলামী ব্যাংকে জনসংযোগ বিভাগের সিনিয়র প্রিন্সিপল অফিসার সুলতান উদ্দিন বলেন, আমাদের প্রায় এক কোটি ২০ লাখ গ্রাহক রয়েছেন। মেলায় যেসব ক্রেতা-দর্শনার্থী আসছেন তাদের অনেকেই আমাদের গ্রাহক। তাই মেলায় গ্রাহকদের লেনদেনের সুবিধার্থে এটিএম বুথের মাধ্যমে নগদ টাকা উত্তোলনে সুবিধা দেয়া হচ্ছে।

নতুন হিসাব খোলা নগদ টাকার জমা ও উত্তোলনসহ আমানত ও ঋণ প্রকল্প সম্পর্কে দশনার্থীদের বিভিন্ন তথ্য জানানো হচ্ছে। নিরাপদ আর্থিক লেনদেন কিংবা বড় অংকের লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যাংকিং সেবা নিতে মেলার দর্শনার্থী ও অংশগ্রহণকারীদের আহ্বান তিনি।

এদিকে ডাচ বাংলা ব্যাংকের দায়িত্বরত অফিসার মাহবুবুর রহমান বলেন, মেলায় এটিএম বুথ থেকে টাকা উত্তোলনসহ প্রাথমিক ব্যাংকিং সুবিধাসহ বিভিন্ন সেবা দেয়া হচ্ছে।

এছাড়াও মেলায় অংশ নেয়া ডাচ বাংলার প্রাতিষ্ঠানিক গ্রাহকদের পস মেশিনের সুবিধা দেয়া হচ্ছে।

বেসরকারি চাকরিজীবী হাসান মাহমুদ বলেন, স্ত্রীকে নিয়ে মেলায় ঘুরতে এসেছি। ফার্নিচার পছন্দ হয়েছে। ডাচ-বাংলা ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা তুললাম ফার্নিচার কিনবো। মেলায় এটিএম বুথ থাকায় এ সুবিধাটি পেলাম। ভালোই লাগছে।