banglanewspaper

বোরকার উৎপাদন ও বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মরোক্কো। গতকাল দেশটির গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশিত হয়। সেখানে বলা হয় মূলত নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে মুসলমান নারীদের মধ্যে প্রচলিত এই পোশাকটির ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, বোরকা বিক্রির নিষেধাজ্ঞার কথা জানিয়ে সোমবার ব্যবসায়ীদের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। এতে নির্দেশনা বাস্তবায়নে তাদের ৪৮ ঘন্টা সময় দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে সরকারি কোনো ঘোষণা দেওয়া হয়নি। কিন্তু অজ্ঞাতনামা কর্মকর্তারা দোকানদারদের জানিয়েছেন, ‘নিরাপত্তাজনিত কারণে’ এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মরক্কো বোরকা পুরোপুরি নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কিনা বিষয়টি পরিষ্কার হওয়া যায়নি। তবে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এলই৩৬০ নামে একটি সংবাদমাধ্যমকে বোরকা নিষিদ্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেছেন, ‘ডাকাতরা এই পোশাকটি ব্যবহার করে বারবার অপরাধমূলক কাজ করছে।’

বোরকা মরক্কোয় বহুল ব্যবহৃত পোশাক নয়। অধিকাংশ নারীই হিজাব ব্যবহার করেন। তবে দেশটির উত্তরাঞ্চলের রক্ষণশীল এলাকাগুলিতে সালাফি নারীরা প্রধানত নেকাব ব্যবহার করেন। এতে শুধু চোখের অংশটুকু উন্মুক্ত থাকে। মরক্কোর বাদশা ষষ্ঠ মোহাম্মদ ইসলামের মধ্যপন্থি ধারার পক্ষপাতী। কিন্তু সরকারের এই সিদ্ধান্ত উত্তর আফ্রিকার এই দেশটিতে বিতর্ক সৃষ্টি করেছে।