হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের আদমপুর গ্রামের বড়বাড়ির কবির মিয়া তালুকদারের নাবালিকা কন্যা নালমুখ সাবিহা চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী সুলতানা আক্তার রিমা (১৫) কে জোর পূর্বক জাকজমক ভাবে বিয়ের আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি নিলে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা করেছে চুনারুঘাট প্রশাসন।

জানা যায়, শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে চুনারুঘাট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোছাঃ তাহমিনা আক্তার ও চুনারুঘাট উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসার মোঃ আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে চুনারুঘাট থানার এস.আই সেলিম উদ্দিন সহ একদল পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে মিরাশী ইউনিয়নের আদমপুর গ্রামের বড়বাড়িতে গিয়ে বাল্য বিবাহটির বিষয়ে সঠিক তদন্ত করে মেয়ের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়ায় বিয়েটি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে সুলতানা আক্তার রিমার পিতা কবির মিয়া তালুকদারকে মেয়ের বয়সের জন্ম সনদ দেখাতে বললে, সে বলে তার মেয়ের জন্ম তারিখ- ১০/০৩/২০০২ইং। উনার সঠিক নিবন্ধন ও স্কুল সার্টিফিকেট দেখে স্কুলের শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদ করিলে তিনিও বলেন মেয়ের জন্ম তারিখ- ১০/০৩/২০০২ ইং। মেয়েটির বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হয়নি। সুলতানা আক্তার রিমা বর্তমানে সাবিহা চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী।

সামনে তার ভবিষ্যত জীবনের কথা চিন্তা না করে তার বাবা অল্প বয়সেই মেয়েটিকে বিয়ে দিয়ে দিচ্ছিলেন। মেয়ের বাবা কবির মিয়া তালুকদার মেয়ের বয়স ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না বলে অঙ্গীকারনামায় স্বাক্ষর করেছেন।