নিজস্ব প্রতিবেদক: নিসর্গসখা, প্রকৃতিপুত্র নামে খ্যাত দ্বিজেন শর্মা মারা গেছেন। আজ শুক্রবার সকালে বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধী তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ায় দ্বিজেন শর্মাকে ১৮ আগস্ট বারডেমের ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন বিভাগের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়ছিল। এর আগে বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতা ছাড়াও ফুসফুসে সংক্রমণে ভোগা দ্বিজেন শর্মাকে ২৩ জুলাই একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। ২৯ জুলাই তাকে আইসিইউতেও নেয়া হয়েছিল। পরে অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছিল তার।

দ্বিজেন শর্মা ১৯২৯ সালের ২৯ মে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। কলকাতা সিটি কলেজ থেকে স্নাতক অর্জনের পর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উদ্ভিদবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর করেন। তিনি উদ্ভিদবিজ্ঞানের শিক্ষক হিসেবে চাকরি করেছেন করিমগঞ্জ কলেজ, বিএম কলেজ ও নটর ডেম কলেজে। পরে প্রায় কুড়ি বছর মস্কোর প্রগতি প্রকাশনে চাকরি করেছেন।

এরপর দেশে ফিরে যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিতে। বাংলা একাডেমি, একুশে পদকসহ বিভিন্ন জাতীয় সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন।

প্রকৃতি ও নিসর্গবিষয়ক লেখালেখিরও পথিকৃৎ দ্বিজেন শর্মা। উদ্ভিদ ও প্রকৃতি নিয়ে লেখা তার আকরগ্রন্থ শ্যামলী নিসর্গ। তার লেখা বইয়ের মধ্যে রয়েছে-সপুষ্পক উদ্ভিদের শ্রেণীবিন্যাস, ফুলগুলি যেন কথা, গাছের কথা ফুলের কথা, এমি নামের দুরন্ত মেয়েটি, নিসর্গ নির্মাণ ও নান্দনিক ভাবনা, সমাজতন্ত্রে বসবাস, জীবনের শেষ নেই, বিজ্ঞান ও শিক্ষা : দায়বদ্ধতার নিরিখ, ডারউইন ও প্রজাতির উৎপত্তি, বিগল যাত্রীর ভ্রমণ কথা, গহন কোন বনের ধারে, হিমালয়ের উদ্ভিদরাজ্যে ডালটন হুকার, বাংলার বৃক্ষ ইত্যাদি।