banglanewspaper

আলীনুর রহমান (রানা) : একবিংশ শতাব্দীর উন্নত বিশ্ব সভ্যতার দিকে লক্ষ্য করলে আজও নিজেদের অবস্থা যাচাই করতে গেলে দ্বিধাগ্রস্থ হতে হয়।
আজ কোথায় তারা আর কোথায় আমরা?
পশ্চিমা সমাজ সভ্যতা যেখানে উন্নতির চরম শিখরে অবস্থান করছে,
সেখানে আজও এদেশের মানুষের নাভিশ্বাস ওঠে কর্দমাক্ত ভাঙ্গাচোরা রাস্তায় চলতে গিয়ে।
অনেকে প্রশাসনকে অভিশাপ দেন, অনেকে নিজের ভাগ্য কে।
কেও নিন্দা করেন পলিটিশিয়ানদের, কেও নিন্দা করেন সরকারি আমলাদের, কেও দোষারোপ করেন অশিক্ষিত আমজনতা কে।
ফলাফল কী হচ্ছে?
সরকার কিংবা জনগণ, কিংবা সরকারি আমলা,
নিজেদের মধ্যে কাদা ছোড়াছুড়ি করে আসবে কী সমাধান?
হবে কী ভাগ্যের উন্নয়ন?
কী হবে খামাখা দোষারোপের বোঝা চাপিয়ে?
যিনি বিশ লাখ টাকা ঘুষ দিয়ে চাকরিতে সদ্য জয়েন করেছেন,
কেন জাদুবলে তাকে বদলাবেন? যাতে তিনি একপয়সা ঘুষের কারবার করবেন না!"
কোন জাদুবলে আপনি রাজনীতিক দের এক টেবিলে বসাতে পারবেন?
যারা কেবলমাত্র দেশের মানুষের কথা ভাববে, মন-প্রান দিয়ে জাতির জন্যে কাজ করবে,
হরতাল, পিকেটিং, পেট্রোল বোমা ছেড়ে সবাই মৈত্রী করবে জাতির উন্নয়নে।
ক্ষমতার দ্বন্দ্বে প্রান হারাবে না কোনো ছাত্র, তরুণ, যুবক।
কাওকে হতে হবে না ক্ষমতার বলি!" 
কীভাবে আসবে সেই সমাজ, সেই সভ্যতা?
যদি বলি সমাজ বদলাতে হবে, এতে মোটেই বদলাবে না সমাজ।
বদলাতে হবে নিজেকে, প্রত্যেককেই।
একটি উন্নতা সভ্যতা বিনির্মাণে সবার আগে আমাদের সভ্য হতে হবে।
সভ্য জনগোষ্ঠীর কাধে ভর দিয়েই কেবল একটি উন্নত সভ্যতা চলতে পারে।
মুখের ফাঁকা বুলি আওড়ে সভ্যতাকে সমৃদ্ধ করা যায় না।
সভ্য মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার জন্যে সবাইকে সংকীর্ণতা ছেড়ে বাইরে আসতে হবে, সুশীল -মার্জিত এবং পরিশীলিত রুচিবোধ সম্পন্ন মানুষ হবে।
পরমতসহিষ্ণুতা এবং নৈতিক গুণাবলী অর্জন করতে হবে।
তাহলেই সামষ্টিক অর্থে এদেশের মানুষ সভ্য হবে, দূর্নীতিমুক্ত হবে, ক্ষমতার-স্বার্থের রাজনীতি বন্ধ হবে, আরো অনেক কিছুই হবে।
সভ্যতার বিনির্মাণে আস্থাভাজন, গ্রহণযোগ্য রাজনীতিকের ভূমিকা অনেক বড় নিয়ামক হিসেবে কাজ করে।
যার প্রতিচ্ছবি আমাদের ইতিহাস পর্যালোচনা করলেও বের হয়ে আসে।
সত্তরের নির্বাচনে ক্ষমতাসীন পাকিস্তানিদের দাপটকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়েছিল এ জাতি, 
বঙ্গবন্ধুর মত অবিসংবাদিত নেতার ডাকে সাড়া দিয়ে।
যখন বঙ্গবন্ধু মানে আপামর জনসাধারনের আস্থা, বিশ্বাস, আশা, আকাঙ্খা, বর্তমান, ভবিষ্যত... সবকিছু।
বর্তমান প্রজন্মকে এগিয়ে নিতে, সমৃদ্ধ সভ্যতা বিনির্মাণে বিশ্বস্ত - দক্ষ রাজনীতিক এবং পরিশীলিত মার্জিত একটি রাজনৈতিক কাঠামো সময়ের দাবি।
এ দাবি একবিংশ শতাব্দীর নাগরিক হিসেবে আমাদের চাওয়া নই, অধিকার।
এই দেশে  প্রকৃত অর্থে সুস্থ রাজনীতির চর্চা হবে, অসাম্প্রদায়িক হবে, দূর্নীতিমূক্ত হবে, সভ্য এবং সমৃদ্ধ সভ্যতায় পরিণত হবে- সেই সুদিনের পথপানে চেয়ে প্রতীক্ষা করব।

 

 

 

 

 

 

 

 

(এ বিভাগে প্রকাশিত মতামত লেখকের নিজস্ব। বাংলাদেশ নিউজ আওয়ার-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে প্রকাশিত মতামত সামঞ্জস্যপূর্ণ নাও হতে পারে।)

ট্যাগ: