রাবি প্রতিনিধি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে স্নাতকে (সম্মান) অনুষ্ঠিতব্য ভর্তি পরীক্ষায় মোট আবেদন করেছে তিন লাখ ১৬ হাজার ১২০ জন শিক্ষার্থী। ফলে ভর্তি হতে প্রতি আসনের বিপরীতে ৬৭ জন ভর্তিচ্ছুকে লড়বে হবে।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক ড. প্রভাষ চন্দ্র শীল বাংলা ডট রিপোর্টকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আগামী ২২ অক্টোবর থেকে ২৬ অক্টোবর নয়টি অনুষদের ৫৭টি বিভাগ ও দুইটি ইনস্টিটিউটে পৃথক পৃথক ভাবে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ১০ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টা থেকে ২৪ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। 

কোটাসহ মোট ৪ হাজার ৭১৩টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছে ৩ লাখ ১৬ হাজার ১২০ জন।

এর মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে ৩৩ হাজার ছয়শ ৮০, ‘বি’ ইউনিটে ৩১ হাজার আটশ ৬৯, ‘সি’ ইউনিটে ৪৯ হাজার একশ ৭৪, ‘ডি’ ইউনিটে ২২ হাজার পাঁচশ ২৬, ‘ই’ ইউনিটে ৪১ হাজার দুইশ ৩২, ‘এফ’ ইউনিটে ৩৯ হাজার নয়শ ৩৪, ‘জি’ ইউনিটে ২৮ হাজার সাতশ ৮৩, ‘এইচ’ ইউনিটে ৩৯ হাজার ছয়শ ২৬, ‘আই’ ইউনিটে চার হাজার ৩২, ‘জে’ ইউনিটে ১৩ হাজার ছয়শ ৪২ ও ‘কে’ ইউনিটে ১১ হাজার ছয়শ ২২ জন প্রার্থী আবেদন করেছে।

ফলে গড়ে প্রতি আসনে লড়বে ৬৭ জন ভর্তিচ্ছুকে তাদের মেধার পরিচয় দিয়েই ভর্তির সুযোগ নিতে হবে।

আগামী ৭ অক্টোবর দুপুর ১২টা থেকে ১১ অক্টোবর রাত ১২টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড করা যাবে বলে জানান আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক খাদেমুল ইসলাম মোল্ল্যা।

গত সেশনে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ না থাকলেও এবার তা পুনরায় চালু করা হয়েছে। ফলে ২০১২, ১৩, ১৪, ১৫ সালে এসএসসি ও সমমান এবং ২০১৬ ও ১৭ সালে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। এবারই প্রথমবারের মত চালু করা হয়েছে মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনি কোটা। সেই সঙ্গে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙ্গে এবার সর্বোচ্চ আবেদন জমা পড়েছে।
 
এছাড়া ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট admission.ru.ac.bd এ পাওয়া যাবে।