banglanewspaper

ডেস্ক রিপোর্ট: ডেরা প্রধান গুরমিত রাম রহিমের যৌন উন্মত্ততা নিয়ে এর আগে অনেকেই মুখ খুলেছেন। নারী দেখলে সামলাতে পারত না সে।

ডেরার নারীদের ধরে ধরে নিজের শিকার বানাত সে। এবার সামনে এলো তার আর এক কেচ্ছার খবর।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডেরার সাচার এক কর্মী সম্প্রতি জানিয়েছেন, করওবাচৌতের দিন ডেরা সাচায় ব্রত রাখা নারীদের নিয়ে বসত রাম রহিম। এই ব্রতে সন্ধ্যাবেলায় চাঁদের দিকে তাঁকিয়ে প্রার্থনা করে তারপরে স্বামীর মুখ দেখতে হয়। সেখানে ডেরায় চাঁদের বদলে সকলকে রাম রহিমের মুখ দেখতে হতো। তারপর ব্রত ভাঙতেন নারীরা। এই প্রথাই ডেরায় নারীদের নিজের কাছাকাছি ধরে রাখতে শুরু করেছিল রাম রহিম। নিজের স্বামীর মুখ ও চাঁদ দেখার বদলে রাম রহিমের মুখ দেখতে হতো নারীদের।

পাশাপাশি ডেরার প্রাক্তন কিছু সদস্যের অভিযোগ, রাম রহিম ডেরার কমবয়সী মেয়েদেরও ধরে ধরে করওবাচৌতের ব্রত রাখতে বাধ্য করত। সারাদিন উপোস করিয়ে চালনি দিয়ে চাঁদের বদলে নিজের মুখ দেখতে বাধ্য করত। অর্থাৎ ঘুরিয়ে ব্রত করানোর টোপ দিয়ে নারীদের কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করত রাম রহিম।

এদিকে জানা গেছে, রাম রহিমকে বাবা বলে দাবি করলেও প্রতিবছর তার জন্য করওবাচৌত করতেন হানিপ্রীত। তবে এবছর জেলে বসে সেই ব্রত করেননি। উল্টে অন্যদিন যা খাবার খান তার চেয়ে বেশি খেয়েছেন। যা দেখে-শুনে জেলকর্মীদের অনেকেই অবাক হয়েছেন।

ট্যাগ: