ক্রীড়া ডেস্করাশিয়া বিশ্বকাপে সরাসরি উঠে গেল ফ্রান্স ও পর্তুগাল। তবে বাদ পড়েছে নেদারল্যান্ডস ও চিলি।

বেলারুশকে ২-১ গোলে হারিয়ে মূল পর্বে জায়গা করে নেয় ফ্রান্স। হয়েছে ‘এ’ গ্রুপ সেরা।

সুইজারল্যান্ডকে ২-০ হারিয়ে আসছে বিশ্বকাপে স্থান পাকা করেছে পর্তুগাল। তবে সুইডেনকে ২-০ গোলে হারিয়েও রাশিয়া বিশ্বকাপে জায়গা করে নিতে পারেনি নেদারল্যান্ডস।

এছাড়া, ব্রাজিলের কাছে হেরে বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব থেকেই ছিটকে পড়েছে চিলি। বুধবার নেইমারদের কাছে ৩-০ গোলের হার এবং ইকুয়েডরের বিপক্ষে আর্জেন্টিনার জয়ে বিদায় ঘণ্টা বাজলো টানা দুইবারের কোপা আমেরিকা বিজয়ীদের।

নিজেদের দেশের মাটিতে সুইজারল্যান্ডকে ২-০ গোলে হারায় পর্তুগিজরা। তাতেই বিশ্বকাপে সরাসরি খেলা নিশ্চিত হয়ে গেলো তাদের। 

বিশ্বকাপে খেলতে হলে জয় ছাড়া কোনোই বিকল্প ছিল না পর্তুগিজদের সামনে। জয় ছাড়া অন্য যে কোনো ফলই তাদের ঠেলে দিতো প্লে-অফের সামনে। কারণ, আগের ৯টি ম্যাচই জিতে নিয়েছিল সুইজারল্যান্ড। ৯ ম্যাচে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে সুইসরাই ছিল সবার ওপরে। পর্তুগালের ৯ ম্যাচে জয় ছিল ৮টি। ২৪ পয়েন্ট নিয়ে তারা দ্বিতীয় স্থানে। শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দল।

অবশেষে সেই জয়টাই পেল রোনালদোর দল। শেষ ম্যাচে সুইজারল্যান্ডকে হারানোর ফলে দু’দলেরই পয়েন্ট দাঁড়াল সমান সমান ২৭। তবে গোল ব্যবধানে অনেক এগিয়ে পর্তুগাল। তাই বাছাইপর্বে ‘বি’ গ্রুপের সেরা হয়েই বিশ্বকাপ নিশ্চিত হলো পর্তুগিজদের। 

পর্তুগিজদের হয়ে একটি গোল করেন আন্দ্রে সিলভা, অপরটি ছিল আত্মঘাতী।

এদিকে, ঘরের মাঠে ২৭ মিনিটে আন্তেনিও গ্রিজম্যানের গোলে লিড নেয় ফ্রান্স। ৩১ মিনিটে অলিভিয়ে জিরুদের গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ হয় ফ্রেঞ্চদের। শেষ পর্যন্ত ১টি গোল শোধ করলেও লাভ হয়নি বেলারুশের। ২৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ সেরা ফ্রান্স চলে যায় সরাসরি বিশ্বকাপে।

গ্রুপের আরেক ম্যাচে সুইডেনকে ২-০ গোলে হারিয়েও বিশ্বকাপে জায়গা করে নিতে পারলো না নেদারল্যান্ডস। তবে হেরেও ১৯ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ সুইডেন খেলার সুযোগ পাচ্ছে প্লে-অফে।

দিনের আরেক ম্যাচে ব্রাজিলের কাছে ৩-০ ব্যবধানের হেরে বাদ পড়েছে চিলি। ব্রাজিলের এই জয়ে বিশ্বকাপের সরাসরি টিকিট পেয়েছে কলম্বিয়া।

সাও পাওলোর মাঠে অনুষ্ঠিত ম্যাচের ৫৫ মিনিটে দানি আলভেসের ফ্রি কিক চিলিয়ান গোলরক্ষক ক্লাউদিও ব্রাভো ঠেকিয়ে দিলেও শেষ রক্ষা করতে পারেননি। ফিরতি শটে পাউলিনিয়ো চিলির জালে বল পাঠিয়ে দলকে এগিয়ে নেন ১-০ ব্যবধানে।

২ মিনিট পরেই আবারও উদযাপন স্বাগতিকদের। এবার এগিয়ে নেন গাব্রিয়েল হেসুস। গাব্রিয়েলই শেষ পেরেক ঠুকেন চিলির কফিনে। অতিরিক্ত সময়ে ব্যবধান করেন ৩-০।

চিলির এই বড় হারে সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছে কলম্বিয়া ও পেরু। কলম্বিয়ার রাশিয়ায় যাওয়া  নিশ্চিত হলেও পেরুও বাঁচিয়ে রেখেছে বিশ্বকাপের স্বপ্ন। বিশ্বকাপের টিকিট পেতে ওশেনিয়া অঞ্চলের সঙ্গে প্লে-অফ খেলতে হবে তাদের।