খোকসা প্রতিনিধি: পেশায় তিনি চিকিৎসক। একটি সরকারি হাসপাতালের প্রধান কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত আছেন। খেলাধুলার দারুণ ভক্ত। তবে মেসি আর আর্জেন্টিনার অন্ধভক্ত তিনি। এমনই এক আর্জেন্টিনাপাগল চিকিৎসক খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা অফিসার ডা. কামরুজ্জামান সোহেল।

রাশিয়ায় অনুষ্ঠিততব্য ফুটবল বিশ্বকাপে অনেকটা অনিশ্চিত ছিলো বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম পরাশক্তি আর্জেন্টিনা। 

বাংলাদেশ সময় বুধবার ভোর সাড়ে ৫টায় কুইটোতে বাঁচামরার ম্যাচে ইকুয়েডরের মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা। তবে শুরুতেই ঝটকা খায় অতিথিরা। ম্যাচের ৪০ সেকেন্ডের মধ্যেই গোল খেয়ে বসে তারা। ওই সময় সতীর্থকে হেডে পাস দেন রোমারিও ইবাররা। পরে বল ফেরত পেয়ে কোনাকুনি শটে সার্জিও রোমেরেকো পরাস্ত করে বল জালে জড়ান এ মিডফিল্ডার।

এরপরই শুরু হয় মেসি ‘শো’। প্রতি আক্রমণে উঠে আসে আর্জেন্টিনা। এতে সমতায়ও ফিরে আসতে দেরি হয়নি তাদের। ম্যাচের ১২ মিনিটে ডি মারিয়াকে বল বাড়িয়ে দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন খুদে জাদুকর। পরে ফেরত পেয়ে বাঁ পায়ের আলতো ছোঁয়ায় বল জালে জড়ান তিনি।

এই খুশিতে আত্নহারা অন্ধভক্ত চিকিৎসক ডা. কামরুজ্জামান সোহেল বুধবার চিকিৎসা নিতে আসা প্রত্যেক রোগীকে নিজ হাতে মিস্টি খাওয়ান। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়েছে বলে জানা যায়।

সাধারণ মানুষ ও রোগীরা বলছেন, ডা. সোহেল শুধু একজন ভালো মানুষই নয়; তিনি ভালো ডাক্তার এবং খেলাপ্রেমিক। তার এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগ দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে বলেও অভিমত প্রকাশ করেন তারা।

জানতে কথা বলা হয় এই চিকিৎসকের সাথে। তিনি বিডিনিউজআওয়ারকে বলেন, আমি আসলে খেলাধুলা খুব পছন্দ করি। আর এই পছন্দের মধ্যে আর্জেন্টিনার আমি মনে-প্রাণে সপোর্টার। আমি আর্জেন্টিনার একজন সমর্থক হওয়ায় রোগীদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিয়েছি।