ডেস্ক রিপোর্ট: ঘটনাটি প্রথম প্রকাশিত হয় হলিউড অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলির অভিযোগের পর। বিখ্যাত প্রযোজক হার্ভে উইনস্টেইনের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ আনেন হলিউড অভিনেত্রী অ্যাঞ্জোলিনা জোলি।

এরপর আরও বহু অভিনেত্রী তার বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ আনলেন।

যার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ, তিনি হলিউডের অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তি। তার রয়েছে দীর্ঘদিনের পরিচিতি ও প্রভাব। ফলে বিষয়টি নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে সম্পূর্ণ হলিউড।

জোলির অভিযোগের পর হার্ভে উইনস্টেইনের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ এনেছেন অভিনেত্রী গেনিথ পাল্টরোও। দুই অভিনেত্রীই জানিয়েছেন তাঁদের কেরিয়ারের শুরুর দিকে এই ধরনের ঘটনা ঘটেছিল। 
এরপর তার বিরুদ্ধে আরও অনেকে অভিযোগ করেন। এসব অভিযোগের মধ্যে রয়েছে ধর্ষণ, যৌন হয়রানি ও সিনেমায় চরিত্রের বিনিময়ে যৌনতার মতো অভিযোগও।

তবে এখনও অনেকেই হার্ভের পক্ষে রয়েছেন।

তারা হার্ভের পক্ষে নানা যুক্তি তুলে ধরছেন। অভিনেত্রীরা স্বেচ্ছায় তার কাছে গিয়েছিলেন বলে দাবি তাদের।

বিবিসিকে পাঠানো ইমেইলে জোলি বলেছেন, ক্যারিয়ারের শুরুতে হার্ভের সঙ্গে একটা খারাপ অভিজ্ঞতা রয়েছে আমার। তার ফলে ওর সঙ্গে আর কখনও কাজ করিনি। এমনকী এ ধরনের আচরণ অন্য কেউ করলেও তাঁদের সঙ্গে কাজ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যে কোনও ক্ষেত্রেই মহিলাদের সঙ্গে এ ধরনের আচরণ মেনে নেওয়া যায় না। 
 
আরেক অভিযোগকারী গেনিথ জানিয়েছেন, ‘এমা’ ছবির লিড রোলে তাঁকে কাস্ট করেছিলেন হার্ভে। কিন্তু সই করার পর তাঁকে আলাদা করে হোটেলে ডেকেছিলেন। সেখানেই হার্ভে তাঁকে যৌন হেনস্থা করেছিলেন।

৬৫ বছরের এই প্রযোজক বহু বাণিজ্য সফল ছবির নির্মাতা। শুধু অভিনেত্রীরাই নন, তাঁর সঙ্গে কাজ করেছেন এমন তিন মহিলা হার্ভের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগও এনেছেন। গোটা ঘটনা তুমুল আলোড়ন তুলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে।

হিলারি ক্লিন্টন এই খবর পাওয়ার পর বলেন, আমি মর্মাহত। যদিও মুখপাত্রের মাধ্যমে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন হার্ভে। তবে বিষয়টির এত সহজ নিষ্পত্তি হবে না বলেই মনে করছে সিনে মহলের একটা বড় অংশ।

এর আগে হার্ভের বিরুদ্ধে জোরালো অভিযোগ করেননি কেউ। ফলে এতগুলো অভিযোগ কিভাবে এতদিন চাপা দিয়ে রেখেছিলেন তিনি, এটা নিয়েও আলোচনা চলছে।

আত্মহত্যাপ্রবণ হার্ভে আটক

বুধবার হার্ভের কন্যা পুলিশের জরুরি নম্বরে ফোন করে জানায়, তার বাবা আত্মহত্যাপ্রবণ হয়ে উঠেছেন এবং তার বিষণ্ণতাও চরমে উঠেছে। এরপর পুলিশ গিয়ে তাকে আটক করে।

হার্ভে তার ২২ বছর বয়সী কন্যা রেমির বাড়িতে গিয়েছিলেন। সেখানেই তিনি আত্মহত্যাপ্রবণ হয়ে ওঠেন বলে জানিয়েছেন তার কন্যা।

তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, হার্ভে তার কন্যার সঙ্গে কোনো বিষয় নিয়ে তীব্র বাদানুবাদ করেন। এরপর তিনি পুলিশ ডাকেন।

অস্কার নিয়ে আলোচনা

হার্ভে উইনস্টেইনের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ওঠায় তার ভবিষ্যৎ নির্ধারণে বৈঠকে বসতে যাচ্ছে অস্কার পুরস্কার প্রদানকারী সংস্থা দ্য ইউএস একাডেমি। ইতিমধ্যেই মিরাম্যাক্স এবং উইনস্টেইন কম্পানি ৮১টি অস্কার পুরস্কার পেয়েছে।

কিন্তু যৌন নিপীড়নের অভিযোগের প্রেক্ষাপটে এ নিয়ে নতুন করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে বুধবার জানায় সংস্থাটি।

২০১৫ সালে এক নারী হার্ভে উইনস্টেনের বিরুদ্ধে যৌন অভিযোগ করলেও তখন কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি এবং এ নিয়ে নিজেদের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেছেন আইনজীবীরা। তাঁরা বলছেন উইনস্টেনের বিরুদ্ধে অভিযোগের যথেষ্ট প্রমাণাদি তাঁরা পাননি, ফলে তাঁকে অপরাধীও বলা সম্ভব হয়নি।

কিন্তু এখন তার বিরুদ্ধে আরও বহু অভিযোগ প্রকাশ্যে আসায় নতুন করে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে।

এফবিআই ও পুলিশের তদন্ত

এদিকে তার বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নানা অভিযোগ আসলেও এতদিন কেউ পুলিশের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ করেননি। ফলে বিষয়টি নিতে তদন্তের সুযোগ ছিল না। কিন্তু এবার জোরালো অভিযোগ ওঠার পর ট্রাম্প প্রশাসনের নির্দেশে তার বিরুদ্ধে তদন্তে নেমেছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই।

মোট তিনজন নারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ তদন্ত শুরু হয়েছে।

এফবিআই ছাড়াও নিউ ইয়র্ক পুলিশ বিভাগও পৃথকভাবে তদন্ত শুরু করেছে হার্ভের বিরুদ্ধে। তদন্তকারীদের এ বিষয়ে তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র : ফক্স নিউজ