বিনোদন ডেস্ক: দ্বিতীয় সংসারও ভেঙেছে ওপার বাঙলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের। তবে ঠিক কবে এবং কি কারণে তাঁর ছাড়াছাড়ি হয় তা জানা যায়নি এখনও। বর্তমানে একমাত্র ছেলেকে নিয়ে সিঙ্গেল মাদারের জীবনযাপন করছেন ‘শিকারি’ সিনেমার এ প্রিয়দর্শিনী।

সম্প্রতি ভারতীয় একটি গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শ্রাবন্তী বলেছেন, “দু’জনে মিলেই বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বনিবনা না হলে একসঙ্গে মিথ্যা সুখে থাকার কী লাভ। আমার কোনো অভিযোগ নেই আমার প্রাক্তনের বিরুদ্ধে। আমি চাই, আমার সঙ্গে না হোক, কিন্তু সে যেনো ভালো থাকে।”

শ্রাবন্তী আরও বলেন, ‘আমি এখন ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছি না। কাজ আর ছেলের পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত। ঝিনুক এবার অষ্টম শ্রেণীতে। ওর স্কুলে যেতে সুবিধা হবে বলে বেহালা থেকে বাইপাসের ধারে বহুতল ভবনে বাসা নিয়েছি। বেশ ভালো আছি মা-ছেলে।’

কার সিদ্ধান্তে দ্বিতীয়বারের বিচ্ছেদের পথ মাড়ালেন শ্রাবন্তী? এমন প্রশ্নের জবাবে শ্রাবন্তী বলেন, ‘দুজনে মিলেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ প্রাক্তন স্বামীর বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগও নেই শ্রাবন্তীর। প্রাক্তন স্বামীকে শুভকামনা জানিয়ে শ্রাবন্তী বলেন, ‘আমি চাই, আমার সঙ্গে না হোক, কিন্তু সে যেন ভালো থাকে।’ এর আগে চলচ্চিত্র নির্মাতা রাজীব চক্রবর্তীর সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল শ্রাবন্তীর। সে ঘরে ঝিনুক নামের একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়।

সম্প্রতি যিশু সেনগুপ্তের সঙ্গে ‘জিও পাগলা’ চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন শ্রাবন্তী। নিজের আসন্ন চলচ্চিত্র সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের অধিকাংশ মানুষ অন্য ধরনের ছবি বোঝে না। দেব-শ্রাবন্তী, জিৎ-শ্রাবন্তী কী করল সেটা দেখার জন্যই তাঁরা আপেক্ষা করেন। এখন আবার অপেক্ষা যিশু-শ্রাবন্তীর জন্য। আসলে বাণিজ্যিক ছবি করতে অনেক বেশি দক্ষতার প্রয়োজন হয়। আপনাকে নাচতে হবে। ভালো অভিনয় করতে হবে। আবার ন্যাকামোও করতে হবে। ‘জিও পাগলা’তে সবরকমই করেছি।"  

নিজেকে আবেগপ্রবণ দাবি করে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি খুব আবেগপ্রবণ। সংসার করতে ভালোবাসি। কিন্তু এখন মনে হয়, শুধু বর থাকলেই সংসার হবে এমন নয়। বাবা-মা, ছেলেকে নিয়েও সংসার হয়। প্রতিটা মেয়েই চায় সংসার করতে। কিন্তু আমার কপালে যা লেখা ছিল তাই হয়েছে। ভবিষ্যৎ কীরকম হবে জানি না। তবে আমি আগের থেকে পরিণত হয়েছি। দিদি, দিদির বন্ধুরা আছে। ওরা আমায় একাকিত্বে ভুগতে দেয় না। এখন কাজেও অনেক বেশি মন দিতে পারছি। মাঝে এক বছর কাজে অতটা মন দেইনি। আর ছেলেকে নিয়েও ভাবনা নেই। ও আমার সেরা বন্ধু। ভীষণ বোঝে আমায়।’

শ্রাবন্তী আরও বলেন, ‘আমি এখন ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছি না। কাজ আর ছেলের পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত। ঝিনুক এবার ক্লাস এইটে। ওর স্কুলে যেতে সুবিধে হবে বলে বেহালা থেকে বাইপাসের ধারে বহুতল ভবনে বাসা নিয়েছি। বেশ ভালো আছি মা-ছেলে।’

এর আগে, ২০০৩ সালে নির্মাতা রাজীব কুমার বিশ্বাসের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। পরবর্তীতে ২০১৬ সালে ১৩ বছরের সংসারের ইতি টানেন তারা। ঝিনুক নামে একটি ছেলে রয়েছে প্রাক্তন এই দম্পতির।