আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের স্থানীয় অধিবাসী নয়। শরণার্থীদের পালিয়ে যাওয়ার সংখ্যা গণমাধ্যমগুলো অতিরঞ্জিতভাবে প্রচার করছে। রাখাইনের রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে এক বৈঠকে মিয়ানমারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে এসব তথ্য জানান দেশটির সেনাপ্রধান মিন অং হ্লেইং।

বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযাগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের পেইজে দেয়া এক পোস্টে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকের তথ্য জানান তিনি।

ওই পোস্টে তিনি দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সংখ্যা নিয়ে গণমাধ্যমে অতিরঞ্জিত তথ্য পরিবেশনেরও অভিযোগ তুলেছেন।

মিয়ানমারে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত স্কট মার্সিয়েলের সঙ্গে বৃহস্পতিবার এক বৈঠকের পর সেনাপ্রধান ফেসবুকে এ বার্তা দেন।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে মিয়ানমারের সেনাপ্রধান বলেন, ‘তারা কোনোভাবেই মিয়ানমারের জনগোষ্ঠী নয়। নথিপত্র প্রমাণ করে, তারা কখনো রোহিঙ্গা নামেও পরিচিত ছিল না। ঔপনিবেশিক আমল থেকেই তারা বাঙালি ছিল। মিয়ানমার তাদের এ দেশে নিয়ে আসেনি। ঔপনিবেশিক আমলেই তারা এসেছিল’

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক কার্যালয় বলছে, রোহিঙ্গাদের রাখাইন থেকে বিতাড়িত করতে নিষ্ঠুর পরিকল্পিত অভিযান পরিচালনা করছে। রোহিঙ্গারা যাতে ফিরতে না পারে সেলক্ষ্যে তাদের বাড়ি-ঘর, ফসল এবং গ্রামগুলো জ্বালিয়ে দেয়া হচ্ছে।

গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে পুলিশের ৩০টি তল্লাশি চৌকিতে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের হামলার পর রোহিঙ্গাবিরোধী কঠোর অভিযান শুরু করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। অভিযানে এখন পর্যন্ত ৫ লাখ ২০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়েছে।