banglanewspaper

ইউক্রেইনের পশ্চিমাঞ্চলে সামরিক মহড়া শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্রসহ নেটোভুক্ত ১৫টি দেশের প্রায় ১৩০০ সেনা।

পোল্যান্ড ও ইউক্রেইন সীমান্তের কছে এলভিভে প্রায় দুইশ মার্কিন সেনা মহড়া দিচ্ছে।

মহড়ায় নেটোভুক্ত বেশিরভাগ দেশ এবং সাবেক সোভিয়েত-ব্লকের কয়েকটি দেশের সেনারাও অংশ নিচ্ছে। শান্তি প্রকল্পে নেটো দেশগুলোর সঙ্গে সাবেক সোভিয়েত-ব্লকের দেশগুলোর অংশীদারিত্ব চুক্তি আছে।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, পূর্ব ইউক্রেনে বর্তমান সংকট শুরু হওয়ার আগেই এ সেনা মহড়ার পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে সরকারি বাহিনী ও রাশিয়াপন্থি বিদ্রোহীদের মধ্যে যুদ্ধ চলছে। সম্প্রতি দুই পক্ষ যুদ্ধবিরতি চুক্তি করলেও সেখানে সংঘর্ষ থামেনি। বিশেষ করে রাজধানী দোনেস্কের চারপাশে যুদ্ধ চলছে।

ইউক্রেইন ও নেটোর অভিযোগ বিদ্রোহীদের সাহায্য করার জন্য রাশিয়া সেখানে সেনা পাঠিয়েছে।

নেটোর দাবি, রাশিয়ার প্রায় এক হাজার ভারী অস্ত্রধারী সেনা এখনো পূর্ব ইউক্রেইনে যুদ্ধ করছে। আর ২০ হাজারের বেশি সেনা সীমান্তের কাছে অবস্থান করছে।

জবাবে রাশিয়া বিদ্রোহীদের সরাসরি সামরিক সাহায্য দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছে। সেখানকার রুশ সেনারা ‘স্বেচ্ছাসেবী’ বলে তাদের দাবি।
ওদিকে, ইউক্রেইনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য নেটোভুক্ত দেশগুলো তাদের অস্ত্র সরবরাহ করা শুরু করেছে।

তবে কি ধরনের অস্ত্র তার দেশে আসছে বা কারা অস্ত্র দিচ্ছে সে ব্যাপারে তিনি কিছু জানাননি।

এর আগেও ইউক্রেইনের পক্ষ থেকে এ ধরনের তথ্য দেয়া হয়। তখন নেটোভুক্ত বেশিরভাগ দেশ তা অস্বীকার করে।

ট্যাগ: