banglanewspaper

আজ সোমবার। দেশের অন্যতম প্রধান কবি শামসুর রাহমানের ৮৯তম জন্মদিন। ১৯২৯ সালের ২৩ অক্টোবর বুধবার পুরান ঢাকার মাহুতটুলির ৪৬নম্বর বাড়িতে কবি জন্মগ্রহণ করেন। 
২০০৬ সালের ১৭ আগস্ট তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেলেও আজীবন কবিতায় সমর্পিত এ কবি প্রধানতম কবি হয়েই বেঁচে আছেন বাঙালির সত্তায়। বাংলা কবিতায় তিনি নতুন ধারা সৃষ্টি করেছিলেন। উভয় বাংলায় সমকালীন সময়ে অন্যতম কবির মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত হন তিনি।

কবিতায় তিনি স্বাধীনতার মানসে ব্যাপক কাজ করেন। মৌলবাদ, ধর্মান্ধতাবিরোধী বিষয়েও স্বাক্ষর রাখেন তিনি। তার মধ্যে ছিল প্রেম, দ্রোহ ও বিশ্বজনীনতা, যা আজও সব বয়সের মানুষকে উজ্জীবিত করে। বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে লেখা কবির অসংখ্য কবিতা সর্বস্তরের মানুষকে উৎসাহিত করে আসছে। তিনি এদেশের শ্রেষ্ঠ কবিদের একজন।

ঢাকা ক‡লেজে অধ্যয়নকালে আঠার বছর বয়সে তিনি লেখালেখি শুরু করেন। তার প্রথম কবিতা প্রকাশ পায় ‘সাপ্তাহিক সোনার বাংলা’ পত্রিকায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতকোত্তর করার পর কবি ১৯৫৭ সালে ডেইলি মর্নিং সান পত্রিকায় সহযোগী সম্পাদক হিসেবে কর্ম ও পেশাগত জীবন শুরু করেন। পরে পাকিস্তান রেডিও’তে দেড় বছর চাকরি করেন। দেশ স্বাধীনের পর ‘দৈনিক বাংলা’ পত্রিকায় যোগ দেন। এক পর্যায়ে এই পত্রিকার প্রধান সম্পাদকসহ ‘সাপ্তাহিক বিচিত্রা’র সম্পাদক ছিলেন। পরবর্তীতে ‘মূলধারা’, ‘অধুনা’ নামে দু’টি সাহিত্য পত্রিকা সম্পাদনা করেন।

কবির প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘প্রথম গান দ্বিতীয় মৃত্যুর আগে’ প্রকাশ পায় ১৯৬০ সালে। দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘রুদ্র করোটি’তে (১৯৬৩ ) এবং পরবর্তীতে ‘বিধ্বস্ত নীলিমা’ (১৯৬৭), ‘নিরালোকে দিব্যরত’ (১৯৬৮), ‘নিজ বাসভূমে’ ( ১৯৭০), ‘বন্দি শিবির থেকে’সহ (১৯৭২) তার প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ ৪৮টি, ১০টি কাব্য সমগ্র, চারটি উপন্যাস, দুইটি গল্প সমগ্র, দুইটি কলাম, পাঁচটি অনুবাদ কবিতা, দুইটি অনুবাদ নাটক, একটি জীবনী, ১০টি শিশুতোষ গ্রন্থসহ মোট ৯৮টি বই প্রকাশ পায়। আদমজী সাহিত্য পুরস্কার, বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, একুশে পদক, স্বাদীনতা দিবস পদক, ভারতের আনন্দ পুরস্কারসহ বেশ কিছু পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

কবির ৮৯তম জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আজ সোমবার বিকেলে একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ পাঠ করবেন ড. তারেক রেজা। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন অধ্যাপক বেগম আকতার কামাল এবং ড. অনু হোসেন। সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।
 
এ ছাড়া, জাতীয় জাদুঘর কবি শামসুর রাহমানের জীবন ও সাহিত্য বিষয়ে আলোচনা সভা ও আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে আলোকচিত্রী এম এ তাহেরের তোলা ১০০টি ছবি নিয়ে প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। এর উদ্বোধন করবেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। আলোচনায় অংশ নেবেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী, কবি নাসির আহমেদ প্রমুখ।

ট্যাগ: