banglanewspaper

ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে করার জন্য ১৬ হাজার ৯শ’ ১ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি একনেক এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের জন্য এই বরাদ্দ অনুমোদন দেয়। একনেকে এছাড়া শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্প্রসারণসহ পাঁচটি উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

অনুমোদিত পাঁচটি প্রকল্পের জন্য ৩৪ হাজার ৫শ’ ৬৭ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

একনেক বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে হলে ঢাকার সাথে ৩০টি জেলা যুক্ত হবে। এক্সপ্রেসওয়েটি ২৪ কিলোমিটার দীর্ঘ হবে। এতে শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে আব্দুল্লাহপুর-আশুলিয়া হয়ে চন্দ্রা মোড় পর্যন্ত যাওয়া যাবে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, এবছর যখন বিশ্বব্যাপী জাতিসংঘ দিবস পালন করা হচ্ছে, ঠিক তখন মিয়ানমারে জাতিগত নির্মূল থেকে বাঁচতে কয়েক লক্ষ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।
ইতোমধ্যেই দশ লক্ষ রোহিঙ্গা, যাদের বেশিরভাগই শিশু, নারী ও অপ্রাপ্ত বয়স্করা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। এই জনগোষ্ঠিকে নিরাপত্তা, মর্যাদা ও সম্মানের সঙ্গে তাদের স্বদেশে ফিরিয়ে নিতে হবে। 

শেখ হাসিনা জাতিসংঘের নীতি ও উদ্দেশ্যের প্রতি বাংলাদেশের দৃঢ় ও অবিচল অঙ্গীকারের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন। 

তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘ দিবসের এই শুভ লগ্নে বাংলাদেশের সরকার ও জনগণের পক্ষে আমি বিশ্ব সম্প্রদায়ের সঙ্গে জাতি সংঘের নীতি ও উদ্দেশ্যের প্রতি আমাদের দৃঢ়তা ও অবিচল প্রতিশ্রুতির পুনর্ব্যক্ত করছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ জাতিসংঘের সঙ্গে সংযুক্ততা। 

বঙ্গবন্ধু ১৯৭৪ সালের ২৫ শে সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের ভাষণে গণতন্ত্র, শান্তি, মানবাধিকার, ন্যয়বিচার এবং জাতীয় ও বিশ্বব্যাপী আইনের শাসন বজায় রাখার জন্য সুস্পষ্ট প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।