banglanewspaper

ডেস্ক রিপোর্ট : সাম্প্রতিক সময়ে ফেসবুক পেজগুলোতে শেয়ার করা আইটেম ফেসবুকারদের ফিডে কম পৌঁছায় বলে অভিযোগ উঠেছে। ভাল কনটেন্ট দিয়েও কাঙ্খিত পাঠক-দর্শক না পেয়ে চিন্তায় পড়েছেন অনেক পেজ মালিক। তবে এটি তাদের কন্টেন্টের দোষ বা ফেসবুকে মানুষ কম আসার কারণে হচ্ছে এমনটা নয়।

মূলত ফেসবুক পেজে প্রকাশিত খবরগুলো বিনামূল্যে প্রচারের সুবিধা বন্ধ করে দেয়ার কারণেই পেজগুলোর অর্গানিক রিচ কমে যাচ্ছে। অর্থ না খরচ করলে পেজে পোস্ট করা কোনকিছুই নিউজফিডে দেখাবে না ফেসবুক। এজন্য সম্প্রতি ‘এক্সপ্লোর ফিড’ নামের নতুন একটি ফিচার চালু করেছে তারা।

আগে ফেসবুকারদের নরমাল ফিডে বন্ধুদের স্ট্যাটাস, ছবি ও ভিডিও লিংকের সঙ্গে বিভিন্ন পেজের শেয়ার করা আইটেম আসতো, কিন্তু এখন আলাদাভাবে এক্সপ্লোর ফিডে এসব আসছে মোবাইল ফোন থেকে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের জন্য।

নতুন এই পদক্ষেপের প্রথম ধাপ হিসেবে ছয়টি দেশে ফেসবুক পেজ থেকে এই সংবাদ প্রকাশ বন্ধ হয়ে গেছে। যা প্রকাশকদের হঠাৎ করে বিনা নোটিশে বিপদে ফেলে দিয়েছে। তবে ফেসবুক বলছে, শ্রীলঙ্কা, বলিভিয়া, স্লোভাকিয়া, সার্বিয়া, গুয়াতেমালা ও কম্বোডিয়াতে চালু হওয়া পদক্ষেপটি পরীক্ষামূলক।

এই পরীক্ষার কারণে অন্য কিছু দেশের ব্যবহারকারীদের মধ্যেও কিছুটা প্রভাব পড়তে পারে। তবে এখনই বিশ্বের সব জায়গায় এটি শুরু হচ্ছে না। 

নিউজফিড দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা ফেসবুকের কর্মকর্তা অ্যাডাম মোসেরি বলেন, কোনো কিছু বিষদভাবে চালু করার আগে বেশ কিছু বিষয় বিবেচনা করে ফেসবুক। মানুষ কী বলে, তারা কী চায়, তাদের মন্তব্য, লাইক, শেয়ার, তাদের অনুভূতি, সময় প্রভৃতি বিবেচনা করা হয়। সবার জন্য দুটি নিউজফিড চালু করা হবে কি না, তা এখনো বিবেচনাধীন।

ফেসবুকের এই পরীক্ষামূলক ফিচারের কারণে এরইমধ্যে ক্ষতির মুখে পড়েছেন পেজ মালিকরা। ইতোমধ্যে স্লোভিনয়ার বড় ৬০টি মিডিয়া পেজের ইন্টারঅ্যাকশন (লাইক, কমেন্ট, শেয়ার) তলানিতে এসে ঠেকেছে। গুয়াতেমালা ও কম্বোডিয়াতেও একই প্রভাব পড়েছে। স্লোভেনিয়ার সবচেয়ে বড় মিডিয়া সাইটেরও পাঠক কমে গেছে।

তবে প্রযুক্তিবিদদের ধারণা, যত সমালোচনাই হোক না কেন, শেষ পর্যন্ত ফেসবুক পেজের পোস্টগুলোকে পুরোনো নিউজফিডে দেখাতে অর্থ খরচ করা ছাড়া আর কোনো পথ খোলা রাখবে না ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ট্যাগ: