banglanewspaper

আব্দুল হাকিম, নাটোর: নাটোরে নেশাগ্রস্থ ছেলের হাতে খুন হয়েছেন মা এবং নিজ ছেলে। রোববার সন্ধ্যায় নিজ বাড়িতে ঘাতক শাহ আলম তার মা বিলকিস বেগম (৫০) এবং নিজের ছেলে আলীফ হোসেন (১০) কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে হত্যা করে। এ ঘটনায় শাহ আলমের বাবাা ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হওযায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সন্ধ্যায় সদর উপজেলার দস্তানাবাদ গ্রামের ফকিরপাড়া এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে। এর পরে এলাকাবাসী ঘাতক শাহ আলমকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। নিহত বিলকিস বেগম দস্তানাবাদ গ্রামের ফকিরপাড়া এলাকার শাহাদৎ হোসেনের স্ত্রী এবং ঘাতক শাহ আলমের আলীফ হোসেন (১০) ছেলে।

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শিকদার মোঃ মশিউর রহমান জানান, বাড়ির জায়গা নিয়ে ঘাতক শাহ আলমের সাথে বেশকিছুদিন ধরে তার মা বিলকিস বেগমের বিরোধ চলে আসছিল। পরে এ নিয়ে মামলা হলে মামলায় রায় পায় ঘাতকের মা বিলকিস বেগম। পরে ওই বিরোধের জের ধরেই রোববার সন্ধ্যায় ঘাতক শাহ আলম তার পেয়ারা বাগান থেকে বাড়িতে গিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মা বিলকিস বেগমকে কুপিয়ে মারাত্মখভাবে জখম করলে সে ঘটাস্থলেই মারা। পরে শাহ আলমের দশ বছরের ছেলে এবং বাবা শাহাদৎ হোসেন বাধা দিতে গেলে তাদেরকেও সে কুপিয়ে জখম করে। কিছু সময় পরে শাহ আলমের ছেলেও মারা যায়।

এসময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে শাহ আলমের বাবাকে গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। এই ঘটনায় স্থানীয় এলাকাবাসী ঘাতক শাহ আলমকে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নাটোর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল হাসনাত বলেন, নেশাগ্রস্থ শাহ আলম ইয়াবাতে আসক্ত। পারবারিক বিরোধকে কেন্দ্র করে এই নৃংশংস হত্যাকান্ড চালায় সে। 
 

ট্যাগ: