banglanewspaper

এম. পলাশ শরীফ, বাগেরহাট: বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ পানগুছি নদীতে নিখোঁজ হয়েছেন খুলনার যুবলীগ নেতা খায়রুজ্জামান সবুজ (৩২)। শনিবার বেলা ১২টার দিকে একটি ট্রলারে করে সন্ন্যাসী এলাকায় যাবার সময় সবুজ ও তার বন্ধু খুলনা কেডিএ’র সার্ভেয়র সামছুল আরেফিন রনি (৩৪)কে মারপিট করে নদীতে ফেলে দেয় তাদের সহযাত্রীরা।

ওই সময় রনির ডাক চিৎকারে মোড়েলগঞ্জের গাবতলা এলাকার ট্রলার চালকরা রনিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু নদীতে ডুবে যায় সবুজ। সে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ২০ ওয়ার্ড যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এবং দুজনেরই বাড়ি খুলনার শেখপাড়া এলাকায় বলে জানা গেছে।

মোড়েলগঞ্জ থানার ওসি মো. রাশেদুল আলম বলেন, রনি ও সবুজের সাথে থাকা অজ্ঞাত পরিচয়ের ৭জনকে ইন্দুরকানি থানা পুলিশ আটক করেছে। তবে কি কারণে এই ঘটনা ঘটেছে তা পরিস্কার করে বলা যাচ্ছে না।

মোড়েলগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রনি বলেন, একটি ৫তলা ভবনের ডিজাইন করার কথা বলে হাসান নামে এক যুবক শনিবার খুলনা থেকে রনি ও সবুজকে মোড়েলগঞ্জে নিয়ে আসে। বেলা ১১টার দিকে তারা একটি ট্রলারে উঠে বলেশ্বর নদীর দিকে চালাতে থাকে। পথিমধ্যে গাবতলা এলাকায় হঠাৎ করেই রনি ও সবুজকে ছুরিকাঘাত ও মারপিট শুরু করে ট্রলারে থাকা অপর ৭ যুবক। ওই সময় জীবন বাঁচাতে তারা দুজনই নদীতে ঝাপ দেয়। 

এদিকে সবুজের সন্ধানে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল নদীতে টহল শুরু করেছে। কেডিএ’র সার্ভেয়র রনিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ট্যাগ: Banglanewspaper মোড়েলগঞ্জ পানগুছি নদী যুবলীগ নিখোঁজ