banglanewspaper

বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরাদি ইউনিয়নে ধর্ষণের শিকার হয়ে লজ্জায় নিজের শরীরে কোরোসিন ঢেলে আগুন দিয়েছিল স্কুলছাত্রী সোনিয়া (১৩)। পাঁচদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর রোববার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয় সোনিয়ার।

সোনিয়া চরাদি ইউনিয়নের হলতা গ্রামের দুলাল খানের মেয়ে ও চরাদি বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

সোনিয়ার পিতা দুলাল খান জানান, গত বুধবার সকাল ১০টার সময় একই বাড়ির পান্নু খানের বখাটে পুত্র আসাদ খান ডিম ভেজে দেয়ার কথা বলে শিশুটিকে তার নিজ ঘরে নিয়ে যায়। এসময় আসাদের পিতা-মাতা কেউ বাড়িতে ছিলো না। এ সুযোগে আসাদ ওই শিশুটিকে ধর্ষণ করে। নিজ ঘরে গিয়ে বেলা ১২টায় শিশুটি লজ্জায় ও অপমান সইতে না পেরে নিজের শরীরে কোরোসিন ঢেলে শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়।

পরে তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন ও তার বাবা-মা এসে আগুনে দগ্ধ শিশুটিকে বরিশাল শেরে বাংলা হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগে ভর্তি করেন। সেখানে ৮নং বেডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুটির স্বাস্থ্যের অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শুক্রবার বেলা ২টার সময় তাকে শেরে বাংলা মেডিকেল হাসপাতাল থেকে ঢাকায় প্রেরণ করেন।

মৃত শিশুটির বোন ছুয়াইয়া আক্তার কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, দিনে দুপুরে তার বোনকে বখাটে আসাদ ধর্ষণ করলো। ৪ দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও এনিয়ে পুলিশ প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিলো না।

বাকেরগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুদুজ্জামান লোক মুখে এরকম একটি ঘটনা শুনেছেন বলে জানান। তবে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে কিনা তা তিনি জানেন না। শিশুটির পরিবার থেকে এখনো কেউ কোন অভিযোগ করেনি বলেও তিনি জানান।

ট্যাগ: Banglanewspaper ধর্ষণ শিশু আত্মহত্যা বরিশাল