banglanewspaper

মজিবুর রহমান, কেন্দুয়া (নেত্রকোণা): পদমর্যাদা ও বেতন স্কেলসহ চার দফা দাবী বাস্তবায়নে নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় দ্বিতীয় দিনের মত কর্মবিরতি পালন করছেন স্বাস্থ্য সহকারীরা।

সোমবার থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে তারা পুর্নকর্মদিবস কর্মবিরতি পালন করায় উপজেলার ৩১২টি টিকাদান কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে।

বাংলাদেশ হেলথ অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী সারা দেশে এক যোগে এ কর্মবিরতি পালন করছে বলে জানায় সংগঠনের কেন্দুয়া শাখার সাধারন সম্পাদক মোঃ তারিফুজ্জামান রিপন। এসময় সংগঠনের কেন্দুয়া শাখার সভাপতি আবুল কাশেম আকন্দ, সাধারন সম্পাদক মোঃ তারিফুজ্জামান রিপন,সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম,সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম,রেজাউল করিম হিরন প্রমূখ। 

বক্তারা বলেন,স্বাস্থ্য বিভাগের সফলতার অর্জনের মূল কারিগর স্বাস্থ্য সহকারীরা। আমরা যেহেতু টেকনিক্যাল কাজ করি তাই আমাদের টেকনিক্যাল বেতন চাই। আমাদের দাবী মানা না হলে আমরা কর্মবিরতি চালিয়ে যাব।

এদিকে টিকাদান কেন্দ্র বন্ধ থাকায় কি ধরণের সমস্যা হচ্ছে বেলা পৌনে চারটায় মুটোফোনে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জিন্নাত সাবাহা উত্তেজিত হয়ে বলেন,আপনারা সাংবাদিকরা রাতে ফোন দেন কেন? অফিস টাইমে ফোন দিতে পারেন না? আমি কি সব তথ্য মাথায় নিয়ে বসে থাকি না-কি? এখন তো রাত না আর আমি তো রুগী হিসেবে আপনাকে ফোন করে সাহায্য নিতে পারি কি-না প্রতিবেদক জানতে চাইলে তিনি উচ্চস্বরে বলতে থাকেন, বলেন বলেন। 

এ ব্যাপারে জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ তাজুল ইসলাম খান বলেন, স্বাস্থ্য সহকারীরা কর্মবিরতি যাওয়া সমস্যা তো হচ্ছেই। আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি এর একটা সমাধান হবে। উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জিন্নাত সাবাহার উত্তেজিত হওয়ার বিষয়টি জানালে তিনি বলেন আপনি ফোন করলেন দিনে আর সে বলে রাতে বিষয়টি বুঝলাম না। আপনাদের সাথে কেন এমন আচারণ করছে বিষয়টি খোঁজ নেয়া নেব।
 

ট্যাগ: banglanewspaper কেন্দুয়া স্বাস্থ্য সহকারী কর্মবিরতি টিকাদান