banglanewspaper

শাহেদুল ইসলাম, ইবি প্রতিনিধি: চতুর্থ সমাবর্তনকে ঘিরে সাবেকদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় । প্রায় দেড়যুগ পর জমকালো আয়োজনে গ্র্যাজুয়েটদের বরণ করতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত ইবি। কড়া নিরাপত্তার বলয়ে আবৃত ১৭৫ একর। 

জানা যায়, আগামী ৭ জানুয়ারী ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হবে। প্রথমবারের মত দেশের সর্ববৃহৎ সমাবর্তনের আয়োজন করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯৭৯ সালে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকে এবারের সমাবর্তনসহ মোট চারটি সমাবর্তনের আয়োজন করে এ বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯৯৩ সালের ২৭ এপ্রিল প্রথম, ১৯৯৯ সালের ৫ ডিসেম্বর দ্বিতীয়, ২০০২ সালের ২৮মার্চ তৃতীয়বার এবং ২০১৮ সালের ৭ জানুয়ারীতে চতুর্থবারের মত সমাবর্তনের আয়োজন করেছে ইবি। এবারের সমাবর্তনে মোট ৯ হাজার ৩৭২ জন গ্র্যাজুয়েট অংশগ্রহণ করবে। 

সমাবর্তনকে ঘিরে ক্যাম্পাসে উৎসবমূখর পরিবেশ বিরাজ করছে। গত বৃহস্পতিবার থেকে প্রিয় ক্যাম্পাসের টানে দূর-দূরান্ত থেকে আসা শুরু করেছে সাবেক শিক্ষার্থীরা । সমাবর্তনকে কেন্দ্র করে আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে পুরো ক্যাম্পাসকে। ক্যাম্পাসের প্রধান ফটক থেকে শুরু করে প্রতিটি স্থাপনাকে দেয়া হয়েছে নতুন রুপ। এছাড়াও প্রতিটি বিভাগকে সাজানো হয়েছে আল্পনা আর রংতুলির বিভিন্ন আচড়ে। বসানো হয়েছে দুটি দৃষ্টিনন্দন গেট। 

সমাবর্তনে অংশগ্রহণকারীদের জন্য প্রায় ৩৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নিমার্ণ করা হয়েছে সুবিশাল প্যান্ডেল। যেখানে একসাথে প্রায় ১২০০০ লোক বসতে পারবে। নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা, ডিবি, এসএসএফ সহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছে ক্যাম্পাসের নিরাপত্তার স্বার্থে। সবোর্চ্চ নিরাপত্তার জন্য ক্যাম্পাসের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বসানো হয়েছে উচ্চতর ক্ষমতাসম্পন্ন সিসিটিভি ক্যামেরা। তাছাড়া র‌্যাবের সদস্যরা সার্বক্ষণিক ডগ স্কোয়াড এবং শক্তিশালী ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ডিটেক্টর নিয়ে মহড়া দিচ্ছে প্রতিটি হলসহ ক্যাম্পাসের সর্বত্র। 

ক্যাম্পাসের সাবির্ক পরিস্থিতি নিয়ে জানতে চাইলে ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন,-‘ আমরা সমাবর্তনকে সাফল্যমন্ডিত করতে জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তাছাড়া সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার জন্য আমরা সর্বদা প্রস্তুত। এ লক্ষ্যে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে।”

সমাবর্তনে অংশগ্রহণের অনুভূতি সম্পর্কে জানতে চাইলে সাবেক শিক্ষার্থী রাশেদুল ইসলাম অনু বলেন,-‘অনেকদিন পর প্রিয় ক্যাম্পাসে বন্ধুদের সাথে মিলিত হওয়ার আনন্দটায় আলাদা। আমরা ক্যাম্পাসের সাজসজ্জা দেখে সব চেয়ে আনন্দিত।”

উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ। এবং সমাবর্তন বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট গবেষক ও বিজ্ঞানী জাফর ইকবাল। 

ট্যাগ: Banglanewspaper সমাবর্তন ইবি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়