banglanewspaper

শরীফ আনোয়ারুল হাসান রবীন, মাগুরা: মাগুরা শহরের উপর দিয়ে প্রবাহিত নবগঙ্গা নদী ময়লা অর্বজনার ভাগাড়ে পরিণত হয়ে নাব্যতা সংকটে পড়েছে। শহরের অধিকাংশ পয়নিস্কাশন ব্যবস্থা ও ড্রেনের মুখ এ নদীর সাথে সংযুক্ত করায় দূষিত হয়ে পড়েছে নবগঙ্গার পানি। বিভিন্ন মহল থেকে নদী দূষণ মুক্ত করার দাবী উঠলেও  পৌর কতৃপক্ষ কোন ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে না।

শহরের বাসা বড়ি, হোটেল রেস্তরা এমনি কি বাজার ও কসাই পট্টির সকল বর্জ্য ফেলা হচ্ছে মাগুরা শহরের উপর দিয়ে প্রবাহিত নবগঙ্গা নদীতে। শুধু বর্জ্য নয়, শহরের অধিকাংশ স্যুয়ারেজ লাইন ও ড্রেনের পানি গিয়ে পড়ছে নবগঙ্গা নদীতে। যে কারনে একদিকে পানি দূষিত হওয়ার পাশপাশি নব্যতা সংকটে পড়েছে  এ নদীটি। নবগঙ্গা নদীর নব্যতা সংকট ও দূষণমুক্ত করতে জেলার বিভিন্ন সংগঠন দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসলেও তাতে কোন ফল হয়নি। 

শহরের বাসিন্দারা বলছেন, মাগুরা শহরে কোথাও ময়লা ফেলার তেমন স্থান নেই। যে কারনে মানুষের বাসা বাড়ির ময়লা আর্বজনাসহ মাছ বাজার ও কসাই পট্টির সকল বর্জ্য ফেলা হচ্ছে এই নবগঙ্গা নদীতে। যা পচে র্দুগন্ধ সৃষ্টির পাশাপাশি নদীর পানি দূষিত হচ্ছে। সৃষ্টি করছে নানা রোগ বালাইয়েরও ।
অনেকে বলছেন, শুধু ময়লা আর্বজনা নয়, শহরের সকল পয়নিস্কাশন ও ড্রেনের পানি ফেলা হচ্ছে এ নবগঙ্গা নদীতে। যে কারনে নদীর পানি ব্যবহারের অনুপোযোগি হয়ে পড়েছে।

এ নবগঙ্গা নদীকে জেলাবাসীর প্রান উল্লেখ্য করে, তা দূষণ মুক্ত করে নব্যতা ফেরাতে ‘সুপ্রভাত বাংলাদেশ’ ‘জাগো মাগুরা’, ‘কান্ডারী’, নামে স্থানীয় একাধিক সংগঠন সংশ্লিষ্টদের কাছে দীর্ঘদিন যাবত দাবী জানিয়ে আসছে।

তবে এ ব্যাপারে পৌর মেয়র খুরশিদ হায়দার টুটুল  বলেছেন, সকল মানুষের সচেতনতা ছাড়া নবগঙ্গা নদী দূষণ মুক্ত করা সম্ভব নয়। এ ব্যাপারে সকল কে সচেতন হতে হবে।
 

ট্যাগ: banglanewspaper ময়লা ডাস্টবিন মাগুরা নবগঙ্গা নদী