banglanewspaper

বিনোদন ডেস্ক : ঢালিউডের জনপ্রিয় জুটি শাকিব-অপু। চলচ্চিত্রের মতো বাস্তব জীবেনও জুটি বেধেছিলেন তারা। তবে খুব বেশিদিন একসঙ্গে থাকা হয়নি এই দম্পতির। গত বছরের শেষদিকে অপু বিশ্বাসকে ডিভোর্স নোটিশ পাঠিয়েছেন শাকিব খান। সেই নোটিশের প্রথম শুনানী ১৫ জানুয়ারি।

আর বাকি রয়েছে মাত্র এক সপ্তাহ সময়। বিষয়টি নিয়ে শোবিজ অঙ্গনে চলছে জোড় আলোচনা-সমালোচনা। কোনদিকে যাচ্ছে এ তারকাদ্বয়ের দাম্পত্য জীবন? আর মাত্র ক’দিন পরই জানা যাবে এর সঠিক জবাব।

তবে আপাতত সংসার টিকিয়ে রাখার পক্ষেই অপু বিশ্বাস। এখনো তিনি আশাবাদী সিদ্ধান্ত বদলাবেন শাকিব খান। তার প্রেম ও একমাত্র পুত্র আব্রাম খান জয়ের টানে সংসারে ফিরে আসবেন তিনি। আবারও সুখে-ভালোবাসায় ভরে উঠবে তাদের দাম্পত্য জীবন।

অপু বিশ্বাসের কথায়, ‘আমি ডিভোর্সের পক্ষে নই। এ কথা আগেও বলেছি এখনও বলছি। আমার একটি সন্তান রয়েছে। তার ভবিষ্যৎ চিন্তা করে আমি কোনো ভাঙনের কথা ভাবতেও চাই না। শাকিব তার সিদ্ধান্ত পাল্টাবে এ বিশ্বাস করছি এখনো। এ বিষয়ে নতুন কোনো প্রশ্ন শুনলে আমি বিব্রত হই।’

কিন্তু বিচ্ছেদের সিদ্ধান্তেই বহাল রয়েছেন শাকিব খান। ডিভোর্স নোটিশ পাঠানোর পর এখন পর্যন্ত এ নিয়ে প্রকাশ্যে আসেননি এ অভিনেতা। বলেননি কোনো কথাও। ডিভোর্স নোটিশ তার শেষ বক্তব্য ছিল, ‘উকিলের সঙ্গে পরামর্শ করেই সব সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যা বলার আমার উকিল বলবেন।’

এদিকে শাকিবের বিচ্ছেদের তদারকী করা উকিল শেখ সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, তালাকনামাটি কার্যকর হতে ৯০ দিন সময় লাগবে। শাকিব খান যদি মনে করেন এটাই তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত, তবে ৯০ দিন পর তালাকনামা স্বয়ংক্রিয়ভাবে কার্যকর হয়ে যাবে।

চূড়ান্তভাবে বিচ্ছেদের আগে এখনও দু’জনের জন্য সংসারের দরজা খোলা আছে। আগামী ১৫ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিনএসিসি) পারিবারিক আদালতে তাদের দুজনকেই থাকতে বলা হয়েছে।

ডিএনসিসি সূত্রে জানা গেছে, সর্বসাকুল্যে তিনবার পারিবারিক আদালতে ডাক পড়বে তাদের। এর মধ্যে তারা যদি সংসারে ফেরার ঐক্যমতে পৌঁছান তাহলে বিষয়টির সমাধান হবে। অন্যথায় স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিচ্ছেদ ঘটবে।

তবে ১৫ জানুয়ারি পারিবারিক আদালতে শাকিব খান আদৌ উপস্থিত থাকবেন কিনা-তাও অনিশ্চিত। কারণ শাকিব খান বর্তমানে ‘আমি নেতা হবো’ সিনেমার শুটিংয়ে রয়েছেন ব্যাংককে। সিনেমাটি পরিচালনা করছেন উত্তম আকাশ। গানের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত থাকায় তার সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। আর ঢাকায় শাকিবের ঘনিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, এখন পর্যন্ত বিচ্ছেদের সিদ্ধান্তেই অটল শাকিব। মত বদলানোর কোনো সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। এ বিষয়ে আগামী ১৫ জানুয়ারি শুনানি শেষ না হওয়া পর্যন্ত নতুন কিছু বলা যাচ্ছে না। তাই আপাতত অপেক্ষা...!

ট্যাগ: Banglanewspaper শাকিব খান অপু বিশ্বাস