banglanewspaper

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ক্ষমতা উপভোগ করার বিষয় নয়, ক্ষমতা জনগণকে সেবা দেয়ার সুযোগ। 

মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ঊর্ধ্বতন পুলিশ অফিসারের উদ্দেশ্যে তিনি এ কথা বলেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রক্ষমতা ভোগের বিষয় নয়। এটি সেবার বিষয়। আমার কাছে মনে হয়েছে আমি জনগণের সেবার সুযোগ পেয়েছি। তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। জনগণ যাতে আর্থ-সামাজিকভাবে স্বাবলম্বী হতে পারে সেটি আমরা চাই।

শেখ হাসিনা বলেন, পুলিশ সদস্য যেভাবে নিয়োগ করা হয়, সেভাবে অফিসারও নিয়োগ করা হবে। না হলে লিডারশীপ আসবে কোথা থেকে। পুলিশ বাহিনীকে জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে হবে। দেশকে এগিয়ে নিতে জনগণকে সহায়তা করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৭৫ এর পরে যারা ক্ষমতায় এসেছে তারা জনগণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কোনো ভূমিকা রাখেনি। ৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে আমরা আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের উদ্যোগ নিয়েছি। মাঝখানে সাতবছর ছিলাম না। আবার ক্ষমতায় এসে আমরা আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি।

পুলিশ বাহিনীর উন্নয়ন নিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আগে পুলিশের বাজেট ছিল ৪০০ কোটি টাকা। আমরা ক্ষমতায় এসে সেটি সর্বপ্রথম ৮০০ কোটি টাকা করেছি। রেশন ২০ থেকে ৪০ ভাগ করেছি, পরে ১০০ ভাগ করে দিয়েছি। পুলিশের জন্য ঝুঁকিভাতা, টিফিনভাতা, কল্যাণভাতার ফান্ডও আমি করে দিয়েছি।

আগে রাজারবাগে কয়েকটা টিনের শেড ছিল। ডিউটি করে এসে পুলিশ সদস্যরা যে ঘুমাবে সে উপায়ও ছিল না। আমিই মাল্টি স্টোর ভবন করে দিয়েছি। পুলিশের সংখ্যা বাড়িয়েছি, লোকবলও বাড়াচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জঙ্গিবাদ এখন আন্তর্জাতিক সমস্যা। অনেক দেশ জঙ্গিবাদ দমনে হিমশিম খাচ্ছে। বিশেষ করে উন্নত দেশেও এ সমস্যা রয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশ পুলিশকে এ সমস্যা কঠোর হাতে দমন করেছে। এ জন্য পুলিশকে আমি ধন্যবাদ জানাই।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ আসলে বিএনপি জোট সরকারের আমলে সৃষ্টি। তারাই জঙ্গি তৈরি করে দেশব্যাপী হামলা চালিয়েছে। তবে বর্তমানে এটি একটি আন্তর্জাতিক সমস্যায় পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

ট্যাগ: Banglanewspaper প্রধানমন্ত্রী পুলিশ