banglanewspaper

ঢাবি প্রতিনিধি : সমন্বিত রাষ্ট্রায়ত্ব ৮ ব্যাংকের পরীক্ষা একসাথে নেয়ার দাবিতে সাধারণ পরীক্ষার্থীদের ব্যানারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্যাম্পাসে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে।

৯ জানুয়ারি ২০১৮ (মঙ্গলবার) বেলা ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। পরে মানববন্ধনটি অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে থেকে রাজু ভাস্কর্য হয়ে শাহবাগে গিয়ে শেষ হয়।

এসময় শিক্ষার্থীরা ১২ জানুয়ারীর পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে দেরিতে হলেও সমন্বিত পরীক্ষা নেয়ার দাবি জানান।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ১ হাজার ৬৬৩টি পদের জন্য ১২ তারিখে আটটি ব্যাংকের সমন্বিত পরীক্ষা নেয়ার কথা থাকলেও এখন তিন ব্যাংকের পরীক্ষা স্থগিত করে বাকি পাঁচ ব্যাংকের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত হওয়া তিন ব্যাংকে পদ আছে ৯৭১টি। আর বাকি পাঁচ ব্যাংকে পদ আছে ৬৯২টি।

একসঙ্গে পরীক্ষা হলে অনেকে চান্স পেতো। কিন্তু দুই ভাগে পরীক্ষা হলে একই প্রার্থী দুই জায়গায় চান্স পাবে। ফলে অন্যরা বঞ্চিত হবে। আর তারা দুই জায়গায় চান্স পেলেও এক ব্যাংকে যোগ দেবে। ফলে পরীক্ষা হয়ে গেলেও পদ খালি থেকে যাবে। এর ফলে যে উদ্দেশ্যে সমন্বিত পরীক্ষার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে সেটিই ব্যর্থ হচ্ছে। সমন্বিত অর্থটাই আর থাকছে না।

বক্তারা আরও বলেন, সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের একটা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি নিয়ে ঝামেলা ছিল। যার কারণে একটা পক্ষ রিট করে। এর ফলে হাইকোর্ট ওই তিন ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করে দেয়। ওই তিন ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা পরে হলেও সমস্যা নেই। তবে একই সঙ্গে নেয়া হোক সেটাই আমাদের দাবি।

এসময় শিক্ষার্থীরা  ১২ তারিখের পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে স্লোগান দেয়। ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটিকে এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান তারা।

এর আগে গত রোববার রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের বিভিন্ন পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তা, কর্মকর্তা (সাধারণ) ও কর্মকর্তা (ক্যাশ) পদে নিয়োগ পরীক্ষাসহ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির সকল ধরনের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দেন উচ্চ আদালত।

 

ট্যাগ: Banglanewspaper ব্যাংকের পরীক্ষা ঢাবি মানববন্ধন