banglanewspaper

ক্রীড়া ডেস্ক : বাংলাদেশের হয়ে ছয়টি ওয়ানডে খেলেছেন আবুল হাসান রাজু। অথচ নামের পাশে নেই কোন উইকেট। সবশেষ ওয়ানডে খেলেছেন ২০১৫ সালের এপ্রিলে। সদ্যগত বিপিএলে ধারাবাহিকভাবে উইকেট নিয়েছেন। ডানহাতি পেসারের বোলিংয়ে উন্নতিটা চোখে পড়েছে নির্বাচকদেরও। তাতে প্রায় তিন বছর পর ওয়ানডে দলে জায়গা মিলেছে তার। 

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) এবার সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলেছেন রাজু। আর এ দলটির মেন্টর ছিলেন পাকিস্তানের কিংদন্তি পেসার ওয়াকার ইউনিস। তাই বিপিএল জুড়েই এ কিংবদন্তির ছোঁয়া পেয়েছেন রাজু। আর তাতেই নিজেকে আরো শাণিত করতে পেরেছেন বলেও বিশ্বাস যুবা পেসারের। বিশেষ করে ওয়াকারের সেরা অস্ত্র রিভার্স সুইং নিয়ে বেশি কাজ করেছেন তিনি। এবার মাঠে সেটা প্রয়োগ করেই নিজেকে প্রমাণ করতে চান রাজু।

তিনি বলেন, ‘আমি আসলে ইনজুরির কারণে তিন বছর প্রায় আউট অব ক্রিকেট ছিলাম। আল্লাহর রহমতে এখন সবকিছু ওভারকাম করেছি। দেখি এখন কী হয়। আবার এখানে এসেছি। নিজেকে প্রমাণ করার এটাই সময়।’

মাঝের এ সময়টায় তার ব্যাটিংয়ে উন্নতি হয়েছে। ৬ জানুয়ারি একটা প্রস্তুতি ম্যাচেও নিচের দিকে নেমে ১৯ বলে ৩৫ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে সে সত্যই জানান দিয়েছেন তিনি। ব্যাটিং নিয়ে তার কথা, ‘ভাই আসলে এটা কঠিন জিনিস। বোলিং করার পর যতটুকু সময় পাই, রিহ্যাব করতে হয় বা ব্যাটিংয়ে সময় দিতে হয়। তারপরও যতটুকু সময় পাই ব্যাটিংয়ে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করি।’

আপনার ব্যাটিংয়ে যেমন উন্নতি হয়েছে, বোলিংয়ে কি ততটা হয়নি? রাজুর দাবি, বোলিংয়েও উন্নতি হয়েছে। তাই তার আত্মবিশ্বাসী সংলাপ, ‘ডেফিনেটলি। ধরেন এখন যে আমরা স্কিলগুলো করছি, আগে সেগুলো করতে পারলে আরও উন্নতি হতো আমাদের। অ্যাক্সাক্টলি, এখন সবকিছু পারফেক্ট হচ্ছে। আই অ্যাম কনফিডেন্ট। অবশ্যই দলে নিয়মিত হতে চাই। ইনশাল্লাহ দেখি কি হয়।’

তার স্লোয়ারের খ্যাতি পুরনো। ঢাকার ক্লাব ক্রিকেটে প্রথম দুই বছর শুধু গতির বৈচিত্র্য এনে স্লো ডেলিভারিতে অনেক উইকেট পেয়েছেন রাজু। এবারের বিপিএলেও তা দেখা গেছে। অনেক সেট ব্যাটসম্যানও ইনিংসের মাঝামাঝি রাজুর স্লোয়ার ঠিকমত বুঝতে না পেরে আউট হয়েছেন। এর পাশাপাশি এবার রিভার্স সুইংও রপ্ত করার কথা জানালেন রাজু।

তার মতে, ‘সবকিছুর মেইন অস্ত্র হলো স্ট্রেংথ। ওয়াকার ইউনুস আমাকে একটি কথাই বলেছেন, জাস্ট মেইনটেইন কর। বোলিং করতে থাকো। হয়ে যাবে। হ্যাঁ, কিছুতো পার্থক্য আছেই। বল ধরার মধ্যে কিংবা ইয়ের (বোলিং কারুকাজে) মধ্যে।’

ট্যাগ: Banglanewspaper আবুল হাসান রাজু