banglanewspaper

ফুটপাথ দখল মুক্ত করতে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন ফেনী। এর অংশ হিসেবে আজ ফেনী শহরের মূল সড়কগুলোতে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা ও ফেনী সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: নূরের জামান চৌধুরী।

ফলের দোকানদার নুরুল আলম পাঁচ হাজার টাকা, ট্রাংক রোডে জিয়াউদ্দিন শাহজাহানকে দুই হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়। জিরো পয়েন্টে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির দায়ে মো: শামসুদ্দিনকে পাঁচ শত টাকা ও রেজিস্ট্রেসন বিহীন গাড়ি চালানোর অপরাধে জাগীর হোসেনকে পাঁচ শত টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়। এ সময়  জাগীর হোসেন জানান, আমার গাড়িতে স্টিকার লাগিয়েছি। এটি থাকলে সার্জেন্টরা আমাকে আর কিছু বলে না। এজন্য আমাকে প্রতিমাসে লাইনম্যানকে পাঁচ শত টাকা দিতে হয়। জাগীর হোসেনের সি এন জি জব্দ করা হয়। 

এ সময় ট্রাংক রোডে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির দায়ে ফলের দোকানদার মো: রাজনকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়।  এসএসকে রোডের রাঁধুনী রেস্তোরার মালিককে রাস্তায় ইট বালু সিমেন্ট রেখে রাস্তা দখল করায় ত্রিশ হাজার টাকা ও মদিনা ট্রেডার্স এর মালিক আবুল হাশেমকে কুড়ি হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করেন। এছাড়া ট্রাংক রোডে মোটরসাইকেল রেখে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির দায়ে গোলাম হোসেন, মাকসুদুর রহমান, একরামুল হক এবং শাহাদাত হোসেন রনি প্রত্যেককে পাঁচ শত টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়।  এসব দন্ড প্রদান করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা। এ সময় রাস্তা দখল করে রাখা অস্থায়ী দোকান অপসারণ করা হয়। 

এছাড়াও ট্রাংক রোডের জয়নাল আবেদীনকে দুই হাজার,  সাইফ উদ্দিনকে এক হাজার, মো: শাহীনকে এক হাজার,  বেলায়েত হোসেনকে পাঁচ হাজার, জ্বিলানী ট্রান্সপোর্টকে পাঁচ হাজার টাকা, মহিউদ্দিনকে পাঁচ শত,  মো: আরিফ এক হাজার, প্রদীপ এক হাজার, ফজলুল করিমকে দুই হাজার, আব্দুল মান্নানকে এক হাজার, প্লাস্টিক ডোর বিক্রেতা দশ হাজার, পাখি ও কবুতর বিক্রেতা নিজাম উদ্দিনকে পাঁচ হাজার এবং নাজির রোডের অভিরাম বসাককে পাঁচ হাজার,  ফারুক এজেন্সিকে দশ হাজার, নূর ফার্নিশার্সকে পাঁচ হাজার ও সেলিম ট্রেডার্সকে কুড়ি হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়। এসব দন্ড প্রদান করেন সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মো: নূরের জামান চৌধুরী। 

একসময় ফুটপাথ দখল অভিযান তদারকি করতে অভিযানে যোগ দেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট পি.কে. এম. এনামুল করিম। এ সময় তিনি ফুটপাথ দখল না করে ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য ব্যবসায়ীদের নির্দেশনা প্রদান করেন। 

অভিযানে আরো উপস্থিত ছিলেন ফেনী পৌরসভার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর কৃষ্ণময় বণিক ও ব্যাটালিয়ান আনসারের সদস্যরা।

ট্যাগ: Banglanewspaper ফেনী ফুটপাথ অভিযান