banglanewspaper

ডেস্ক রিপোর্ট: ইসির নির্দেশ উপেক্ষা করেই প্রচারণা চালাচ্ছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীরা। আচরণবিধি অনুসারে ভোটের তারিখের ২১ দিন আগে কোনো ধরনের প্রচারণা চালানোও নিষিদ্ধ। কিন্তু তা সত্ত্বেও প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন উপনির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা তফসিল ঘোষণার দিনও আচরণবিধি মেনে চলতে হুঁশিয়ার করে দেন বলে ডিবিসি নিউজের খবরে বলা হয়।

এদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম বেশ আয়োজন করেই প্রচারে নেমেছেন। কমিশনের নির্দেশের কথা মনে করিয়ে দিলে তিনি জানান, ব্যক্তিগত পর্যায়ে পরিচয় পর্ব সারতেই এমন আয়োজন।

এর আগে মেয়র নির্বাচনে প্রার্থী ছিলেন কমিউনিস্ট পার্টির কাফি রতন ও গণসংহতি আন্দোলনের জোনায়েদ সাকি। এবারও প্রার্থী হচ্ছেন তারা। এমনকি জনসংযোগে নেমে পড়েছেন জোনায়েদ সাকি।

নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলার বিষয়ে নিজেদের সচেতন অবস্থান জানানোর পাশাপাশি নির্বাচনী প্রচারে সবাই যেন সমান সুযোগ পায় সে দাবিও জানিয়েছেন তারা।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুর কিছুদিনের মধ্যেই উপনির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহীরা বিভিন্ন এলাকায় পোস্টার টানাতে শুরু করেন। অথচ তা সম্পূর্নভাবেই নির্বাচনী আচরণবিধির লঙ্ঘন।

ট্যাগ: Banglanewspaper ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচন আচরণবিধি প্রচারণা