banglanewspaper

নিজস্ব প্রতিনিধি: ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ শুরু হচ্ছে ৫ ফেব্রুয়ারি। প্লেয়ার ড্রাফট দিন ঘোষণা করা হয়েছে ২০ জানুয়ারি। ২২৭ ক্রিকেটারের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে।

আইকন থেকে ক্যাটাগরি সি। সবচেয়ে নিচের গ্রুপ হলো সি। এই গ্রুপের খেলোয়াড়দের দাম ধরা হয়েছে সাড়ে তিন লাখ টাকা।

কিন্তু এই ‘সি’ ক্যাটাগরিতে রাখা হয়েছে সাবেক জাতীয় দলের পেসার সৈয়দ রাসেলকে। আরেক পেসার রবিউল ইসলামও আছেন একই বিভাগে।

আর এখানেই যত আপত্তি সাবেক বাহাতি বোলার সৈয়দ রাসেলের। তাকে সি ক্যাটাগরিতে রাখায় নির্বাচকদের উপর রীতিমত ক্ষুব্ধ তিনি। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে সৈয়দ রাসেল লিখেন, ‘নির্বাচকদের বলছি, মনটা আরেকটু বড় করুন।

টেস্ট খেলা দুজন ক্রিকেটারকে এভাবে অপমান না করলেও পারতেন। আপনারই বলেন শ্রদ্ধা করতে, কিন্তু নিজেরাই শ্রদ্ধা করতে শিখলেন না। রেকর্ড ঘাটুন। পারফর্ম করে ক্রিকেট খেলি, চেহারা দেখিয়ে নয়।’

নির্বাচকদের উপর তার অভিমানের যৌক্তিকতাও রয়েছে। গত বছর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের সবশেষ ম্যাচে নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। মোট ৬ ম্যাচে ৮ উইকেট। পারফরম্যান্স আহামরি না হলেও খারাপও নয়। অন্তত সি ক্যাটাগরিতে পড়ার মতো খেলোয়াড় তিনি নন!

বাংলাদেশের হয়ে ৭টি টেস্ট, ৩২ ওয়ানডে ও ৮টি টি টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেন সৈয়দ রাসেল।

ট্যাগ: Banglanewspaper সৈয়দ রাসেল অপমান বিসিবি