banglanewspaper

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি: ইন্দুরকানীতে চাচা-ভাতিজা দু’গ্রুপের মধ্যে পাল্টাপাল্টি হামলায় সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য সহ উভয় পক্ষের ১৫ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহতদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় ভাতিজা গ্রুপের রানা গাজী বাদী হয়ে ইন্দুরকানী থানায় মামলা করেন।

পুলিশ চাচা ছালাম গাজীকে আটক করে ওই মামলায় আটক দেখিয়ে শনিবার আদালতে পাঠিয়েছে। স্থানীয় ও থানা সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার গাবগাছিয়া গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চাচা আঃ ছালাম গাজী ও তার ছেলে মিল্টন গাজী, লিটন গাজী, স্বপন গাজী ও নিক্সস গাজী গ্রুপের উপর ভাতিজা ফারুক গাজী গ্রুপের কতিপয় ভাড়াটে লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। পরে প্রতিরোধে চাচা ছালাম গাজী গ্রুপের লোকজন ভাতিজা গ্রুপের উপর পাল্টা হামলা চালায়।

এসময় উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। হামলার খবর শুনে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ফয়সাল মোর্সেদ কিসলু গাজী পুলিশকে খবর দিলে পুলিশের সামনেই মিল্টন গাজী তাকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে গুরুতর আহত করে। এসময় এলোপাথারী হামলায় ফারুক গাজী, এলিজা বেগম, নাদিরা বেগম, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আঃ খালেক গাজী, নাঈম গাজী, মোনাফসের হাওলাদার, পথচারী রফিকুল ইসলাম অপর পক্ষের নিক্সন গাজী, স্বপন গাজী, জাফর গাজী, রাফি গাজী সহ ১৫ জন আহত হয়।

পরে গুরুতর আহত ইউপি সদস্য ফয়সাল মোর্সেদ কিসলু গাজী, ফারুক গাজী নিক্সন গাজী, স্বপন গাজী, জাফর গাজী, রাফি গাজীকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

চাচা ছালাম গাজী জানান, ফারুক গাজী ভাড়াটে লোকজন নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আমাদের উপর হামলা চালায়।
অপরদিকে ভাতিজা ফারুক গাজীর ছেলে রানা গাজী জানান, ছালাম গাজী ও তার ছেলেরা পরিকল্পিত ভাবে আমাদের উপর হামলা চালিয়ে আমাদের পরিবারের লোকজনকে আহত করে।

ইন্দুরকানী থানার ওসি মোঃ নাসির উদ্দিন জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধে আহতের ঘটনায় ৬ জনকে আসামী করে মামলায় হয়েছে। এঘটনায় একজনকে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগ: Banglanewspaper ইন্দুরকানী হামলা আহত