banglanewspaper

মনিরুল ইসলাম মনি: এবারে মাসব্যাপী চলা ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় ফ্রুটিকার প্যাভিলিয়নটি আগত দর্শনার্থীদের নজর কেড়েছে। ব্যতিক্রমী ও দৃষ্টিনন্দন আস্ত আমগাছ সজ্জিত আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের ‘ফ্রুটিকা’র প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়নটি।

ভেতর-বাহিরে আমগাছের অস্তিত্ব থাকলেও দূর থেকে দেখলে মনে হবে প্যাভিলিয়নটি কেউ একজন ঝুড়ি হাতে করে ধরে আছে। যে ঝুড়িতে রয়েছে প্রাকৃতিক আমের স্বাদে ফ্রুটিকার জুস ও কোমল পানীয়।

জানা গেছে, এবার মেলা উপলক্ষে ফ্রুটিকা প্রাকৃতিক আমের স্বাদে জুসসহ হরেক রকমের কোমল পানীয়ের ৯০টি পণ্যের সমন্বয়ে মোট ১৮টি প্যাকেজ এনেছেন। প্যাকেজের মূল্য ৯০ টাকা থেকে শুরু করে ২৮০ টাকা পর্যন্ত রাখা হয়েছে। এছাড়া প্রায় ৯০ শতাংশ পণ্যে বাজার মূল্য থেকে ছাড় দেয়া হচ্ছে। তবে ছাড়ে মাঝে মাঝে পরিবর্তন হবে।

এছাড়াও কোনো ক্রেতা যদি একটি প্যাকেজ নেন তাহলে একটি টোকেন দেয়া হবে। সে টোকেন নিয়ে ক্রেতা প্যাভিলিয়নের দ্বিতীয় তলায় চলে যাবেন। সেখানে বিভিন্ন ধরনের খেলার আয়োজন হয়েছে। যেকোনো একটি খেলায় অংশগ্রহণ করে যদি কাঙ্ক্ষিত পয়েন্ট পান তাহলে তার জন্য রয়েছে মগ, টি-শার্ট, ব্যাট ও বল ইত্যাদি পুরস্কার।

মেলায় ফ্রুটিকা প্যাভিলিয়ন (নম্বর-২৯) ইনচার্জ রিয়াজুল ইসলাম বলেন, বাণিজ মেলায় ব্যবসা আমাদের উদ্দেশ্য নয়। আমাদের উদ্দেশ্য পণ্যের প্রচার ও প্রসার। প্রতি বছরই আমরা মেলায় প্যাভিলিয়ন সাজানো থেকে পণ্যে বৈচিত্র্য আনার চেষ্টা করি।

এছাড়াও আগত দর্শনার্থীরা ফ্রুটিকা আম রাজ্যে সেলফি তুলে প্রতি ঘণ্টায় জিতে নিতে পারেন আকর্ষণীয় পুরস্কার। ফ্রুটিকার প্রিমিয়াম প্যাভিলিয়ন-২৯ এর ফ্রুটিকা আম রাজ্যে সেলফি তুলে আপলোড করতে হবে এএফবিএল’র ইভেন্ট পেইজে। এরপর লাইক ও শেয়ারের ভিত্তিতে সেলফি আপলোডকারীদের দেয়া হবে পুরস্কার। এ সুযোগ মিস না করতে চাইলে এখনই চলে আসতে হবে ফ্রুটিকার প্যাভিলিয়নে।

সবমিলিয়ে দেশের সবচেয়ে বড় বাহারি পণ্য মেলা ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় (ডিআইটিএফ) সৌন্দর্যবর্ধনে ফ্রুটিকার প্যাভিলিয়ন ইতোমধ্যে সবার নজর কেড়েছে।

উল্লেখ্য আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের (এএফবিএল) অন্যতম জনপ্রিয় একটি ব্র্যান্ড ফ্রুটিকা। ২০০৭ সালে যাত্রা শুরু হয় ফ্রুটিকার। বাংলাদেশি ভোক্তারা ওই সময় মানসম্পন্ন জুস বলতে একমাত্র বিদেশি জুস ব্র্যান্ডকেই বুঝতো। আর তাই আরো ভালো মানের জুস আরো সুবিধাজনক উপায়ে সরবরাহের জন্য এএফবিএল ‘ফ্রুটিকা’ ব্র্যান্ড নিয়ে আসে।

ফ্রুটিকার ৭ এসকেইউ হলো ফ্রুটিকা ম্যাংগো পেট ২৫০ মিলি, ফ্রুটিকা ম্যাংগো পেট ৫০০ মিলি, ফ্রুটিকা ম্যাংগো পেট ১০০০ মিলি, ফ্রুটিকা রেড গ্রেপ পেট ২৫০ মিলি, ফ্রুটিকা গ্রিন ম্যাংগো ২৫০ মিলি, ফ্রুটিকা প্রিজমা টেট্রা প্যাক ২৫০ মিলি, লিটিল ফ্রুটিকা টেট্রা প্যাক ১২৫ মিলি।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো সূত্রে জানা যায়, এবারের মেলায় দেশি-বিদেশি মিলিয়ে মোট ৫৮৯টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। ভারত, পাকিস্তান, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ইরান, থাইল্যান্ড, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, মরিশাস, ভিয়েতনাম, ভুটান, মালদ্বীপ, নেপাল ও হংকংয়ের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পণ্য দেখা মিলছে মেলার ২৩তম আয়োজনে।

ট্যাগ: Banglanewspaper বাণিজ্য মেলা ফ্রুটিকা আমগাছ