banglanewspaper

বিরোধী দলের ওয়াকআউটের মধ্যেই ব্যাংক কোম্পানি আইনের সংশোধনী পাস হলো সংসদে। এখন থেকে এক পরিবারের দুজনের পরিবর্তে সর্বোচ্চ চারজন সদস্য কোনো ব্যাংকের পরিচালক হতে পারবেন। এছাড়া টানা দুই মেয়াদে ছয় বছরের পরিবর্তে কোনো পরিচালক টানা তিন মেয়াদে নয় বছর পরিচালক হিসেবে থাকতে পারবেন।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে বিলটি পাস হয়। বিল পাসের প্রস্তাব দেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

এ সময় সংসদের অধিবেশন চলাকালে ওয়াকআউট করেন বিরোধীদলীয় সদস্যরা।

বিলটি উত্থাপনের বিরোধিতা করে বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সাংসদ ফখরুল ইমাম বলেছিলেন, এটা অনৈতিক। একজন ব্যক্তির স্বার্থে আইন হতে পারে না। ব্যাংকে একই পরিবারের দুজন থেকে চারজন করে পরিচালক করা হলে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হবে। এতে দেশে ফ্যামিলি ব্যাংকিং ব্যাংক দেখা যাবে। বেড়ে যাবে ব্যাংকের খেলাপি ঋণ। ফ্যামিলি ব্যাংক হলে অর্থনীতির আর কিছু বাকি থাকবে না। সব লুটপাট হয়ে যাবে। একমাত্র ব্যাংকের পরিচালকের আত্মীয়-স্বজনেরা সুবিধা পাবে, আর কেউ পাবে না।

পরিচালকের মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাবের বিরোধিতা করে তিনি বলেছিলেন, এর ফলে যত দিন ব্যাংক থাকবে, তত দিন লুটপাটের ব্যবস্থা করে দেয়া হচ্ছে।

সংসদে আসার আগে মঙ্গলবার সকালে অর্থমন্ত্রী সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, অনেকের আপত্তি থাকলেও আইনটি সংশোধন করা হবে।

আইনটি সংশোধনের ব্যাপারে অনেকের আপত্তি আছে বলে অর্থমন্ত্রীকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘আপত্তি আছে, আপত্তি থাকুক। আইন করা হলে অনেকেরই আপত্তি থাকে।’

আপত্তি সত্ত্বেও বিলটি পাস হওয়ার কারণ জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘পাস করব। মন্ত্রিসভা যেহেতু পাস করে দিয়েছে, আমারও তা পাস করতে হবে।’

উল্লেখ্য, এতদিন এক পরিবার থেকে সর্বোচ্চ দুজন সদস্য একটি ব্যাংকের পরিচালক হতে পারতেন। আর তিন বছর করে পরপর দুই মেয়াদে মোট ছয় বছর একই ব্যক্তি পরিচালক হতে পারতেন। এরপর তিন বছর বিরতি দিয়ে আবারও পরিচালক হতে পারতেন।

ট্যাগ: Banglanewspaper ব্যাংক আইন