banglanewspaper

ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি বলছেন, গত কয়েক বছরে বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়ন ও অগ্রগতি দেখে তিনি অভিভূত। আগামী দিনগুলোতে বাংলাদেশ আরও উন্নয়ন ও অগ্রগতির দিকে এগিয়ে যাবে বলে ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

পাঁচ দিনের সফরে বাংলাদেশে আসা প্রণব মুখার্জি গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এ কথা বলেন। -খবর বাসস ও বিডিনিউজের।

বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। এ সময় রাষ্ট্রপতির তিন ছেলে রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, রাসেল আহমেদ তুহিন ও রিয়াদ আহমেদ তুষার এবং মেয়ে স্বর্ণা হামিদ উপস্থিত ছিলেন। প্রণবকন্যা শর্মিষ্ঠা মুখার্জিও এ সময় উপস্থিত ছিলেন। পরে বঙ্গভবনের ক্রেডেনশিয়াল হলে বৈঠক করেন আবদুল হামিদ ও প্রণব মুখার্জি।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, আবদুল হামিদ ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতিকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, ভারত বাংলাদেশের পরীক্ষিত বন্ধু। তিনি ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে ভারতের সহযোগিতার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। এ সময় তারা মুক্তিযুদ্ধকালীন বিভিন্ন ঘটনার স্মৃতিচারণ করেন।

প্রণব মুখার্জি বলেন, ভারতের রাষ্ট্রপতি হিসেবে তার প্রথম সফর ছিল বাংলাদেশ এবং অবসরের পরও প্রথম সফর বাংলাদেশ। প্রণব মুখার্জি বাংলাদেশের আতিথেয়তার প্রশংসা করেন এবং মাস্টারদা সূর্য সেনের স্মৃতি সংরক্ষণের প্রশংসা করেন। সাক্ষাতের সময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলাও উপস্থিত ছিলেন। 

পরে আবদুল হামিদ ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি ও তার মেয়েকে বঙ্গভবনে নৈশভোজে আপ্যায়ন করান। নৈশভোজে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও অংশ নেন। এ ছাড়া কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, পানিসম্পদমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, আওয়ামী লীগ নেতা শেখ ফজলুল করিম সেলিমসহ মন্ত্রিসভার কয়েকজন সদস্য নৈশভোজে অংশ নেন। আজ বৃহস্পতিবার দিল্লির উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বেন প্রণব মুখার্জি।

সূর্য সেন ও প্রীতিলতার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা :চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের অগ্নিপুরুষ মাস্টারদা সূর্য সেন ও বীরকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের স্মৃতিবিজড়িত কিছু স্থান পরিদর্শন করেছেন প্রণব মুখার্জি। 

গতকাল দুপুরে চট্টগ্রামের পাহাড়তলীতে তৎকালীন ইউরোপিয়ান ক্লাবের সামনে স্থাপিত প্রীতিলতার আবক্ষ মূর্তিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান প্রণব মুখার্জি। এর পর ক্লাবটি ঘুরে দেখেন তিনি। এর আগে নগরের দামপাড়া পুলিশ লাইনে ব্রিটিশ পুলিশের অস্ত্রাগার হিসেবে ব্যবহূত দুটি স্থাপনা পরিদর্শন করেন তিনি। মাস্টারদা সূর্য সেনের নেতৃত্বে স্বাধীনতাকামী বিপ্লবীরা অস্ত্রাগারটি দখলে নিয়েছিলেন।

সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর হোটেল র‌্যাডিসন ব্লু বে ভিউ থেকে দামপাড়া পুলিশ লাইনে যান প্রণব মুখার্জি। এ সময় নগর পুলিশের কমিশনার মো. ইকবাল বাহারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাকে স্বাগত জানান। ব্রিটিশ পুলিশের অস্ত্রাগার হিসেবে ব্যবহূত স্থাপনা দুটি ঘুরে দেখার সময় অস্ত্রাগারটির ইতিহাস তার সামনে তুলে ধরেন পুলিশের কর্মকর্তারা। অস্ত্রাগার পরিদর্শন শেষে পাহাড়তলী ইউরোপিয়ান ক্লাবে যান প্রণব মুখার্জি। যেখানে ১৯৩২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বরে মাস্টারদা সূর্য সেনের নির্দেশে হামলা চালান প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার। এর পর ব্রিটিশ সেনাদের হাতে ধরা পড়ার আগে আত্মাহুতি দেন তিনি। তখন এ ক্লাবটির সাইনবোর্ডে লেখা ছিল 'কুকুর ও ভারতীয়দের প্রবেশ নিষিদ্ধ।'

ইউরোপিয়ান ক্লাবে প্রণব মুখার্জিকে ফুল দিয়ে বরণ করেন সংসদ সদস্য ও রেলপথ মন্ত্রণালয়-সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। এ সময় চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক জিল্লুর রহমান চৌধুরীসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

প্রণব মুখার্জি কাঠের কাঠামোয় নির্মিত ক্লাবটি ঘুরে দেখেন। কাঠের পাটাতনের নিচে ব্রিটিশ সৈন্যদের অস্ত্র রাখার জায়গাটি তাকে দেখানো হয়। এর পর প্রীতিলতার আবক্ষ মূর্তিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান তিনি। এ সময় প্রণবের সঙ্গে ছিলেন তার মেয়ে শর্মিষ্ঠা মুখার্জি। দুপুর ১২টার দিকে তাকে নিয়ে গাড়িবহর চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওনা দেয়। দু'দিনের সফর শেষে ঢাকার উদ্দেশে চট্টগ্রাম ছাড়েন প্রণব।

ট্যাগ: Banglanewspaper প্রণব মুখার্জি সাকিব রাষ্ট্রপতি