banglanewspaper

ইসলামিক স্টেট বা আইএসের অবস্থান লক্ষ্য লিবিয়ায় বোমা হামলা করেছে মিশর। রোববার (১৫ ফেব্রুয়ারি) ২১ মিসরীয় নাগরিককে শিরশ্ছেদের ভিডিও প্রকাশিত হওয়ার পর এমন কড়া ‘অ্যাকশনে’ গেল মিশর।

মিশরের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে আইএসের ক্যাম্প, প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও অস্ত্রাগার লক্ষ্য করে বোমা হামলা করতে দেখা গেছে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে লিবিয়ান সরকারি কর্মকর্তারা জানান, তাদের সহায়তায় মিশর জঙ্গি নিয়ন্ত্রিত শহর দারনায় বোমা ফেলেছে।

আইএস প্রকাশিত শিরশ্ছেদের ভিডিওতে দেখা যায়, কমলা রঙের পোশাক পরিহিত ও পেছন থেকে হাতকড়ায় বাঁধা ২১ মিশরীয় নাগরিককে গলা কেটে হত্যা করা হচ্ছে।  
 
ভিডিওটির শিরোনামে লেখা ছিল, ‘রক্তে স্বাক্ষরিত এ ভিডিওর বার্তা ক্রুস ব্যবহারকারী জাতির জন্য (এ ম্যাসেজ সাইনড উইথ ব্লাড টু দ্য ন্যাশন অব ক্রুস)।  

ইরাক ও সিরিয়ার বিশাল অঞ্চল দখল করে খেলাফত ঘোষণা করা আইএসের দাবি, এ ২১ জনকে হত্যার মাধ্যমে মিশরীয় খ্রিস্টানদের হাতে মুসলিম নারীদের অপমানের বদলা নিয়েছে তারা।   

এর প্রতিক্রিয়ায় মিশরের প্রেসিডেন্ট ‍আবদেল ফাত্তাহ এল সিসি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, আইএসের বিরুদ্ধে যথাসময়েই কড়া পদক্ষেপ নেবে মিশর।

বর্বর এ হত্যাকাণ্ডের পর মিশরের প্রেসিডেন্টকে ফোন করে সমবেদনা জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি। ফোনালাপে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জনগণ মিশরের জনগণের পাশে থাকবে বলে সিসিকে জানান।

গত জানুয়ারিতেই আইএসের লিবিয়া শাখা পৃথক হামলা চালিয়ে ওই ২১ মিশরীয় খ্রিস্টানকে অপহরণ করে।

ট্যাগ: