banglanewspaper

শরীফ আনোয়ারুল হাসান রবীন: মাগুরা সদর উপজেলার রাওতড়া গ্রামে শুক্রবার ভোরে গরু চোর সন্দেহে এক  যুবককে পিটিয়ে হত্যা করেছে গ্রামবাসী। নিহতের ব্যক্তির নাম কবির হোসেন (৩৭)। তিনি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার আডুয়াকান্দি গ্রামের আবুল কাশেমের পুত্র।

সদর থানার ওসি ইলিয়াছ হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কবির রাউতড়া গ্রামে লুৎফর রহমানের বাড়িতে প্রবেশ করে। এ সময় গরু চোর তাকে সন্দেহ করে লুৎফর রহমান চিকিৎকার দিলে গ্রামবাসী সংঘবদ্ধ হয়ে আটক করে গণপিটুনী দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসে। তবে এর পেছনে অন্য কোন কারণ আছে কিনা পুলিশ তা তদন্ত করে দেখছে।

নিহত বড় ভাই মিরাজ হোসেন বলেন, কবির চোর নয়, তিনি মানুষিক প্রতিবন্ধী। দীর্ঘদিন ধরে তার মানুষিক রোগের চিকিৎসা চলছিল। সম্প্রতি তার স্ত্রী ১৩ বছর সংসার জীবন অতিবাহিত করার পর তাকে তালাক প্রদান করে অন্য একজনরে সাথে চলে যাবার পর থেকে ইদানিং সে বাড়ি ছেড়ে দূর দুরান্তে বিভিন্ন স্থানে চলে যায়। কদিন আগে তাকে ফরদিপুরের কাশীয়ানি থানা এলাকা থেকে নিয়ে আসা হয়। এ কারনে তাকে বাড়িতে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছিল। গতকাল বৃহস্পতিবার তিনি সেখান থেকে কৌশলে পালিয়ে আসেন। 

ঝিনাইদহ পবহটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নিহতের আত্মীয় মো: হিরণ জানান, দীর্ঘদিন ধরে কবির মানুষিক রোগে ভুগছে। এলাকাবাসীর কাছে তিনি পাগল হিসেবে পরিচিক। এ জন্য তার চিকিৎসা চলছিল। প্রতিন্ধীতার কারনে প্রায় সে বাড়ি থেকে উধাও হয়ে যেত। সে হয়ত অনেক সময় অন্যের গাছ গাছালি ভেঙ্গে নস্ট করে ফেলতো। এছাড়া অন্যের কিছু নেয়া বা কারো ক্ষতি সাধনের মতো কোন ঘটনার এমন কোন নজির নেই। 

তিনি আরও বলেন, এতো জঘন্য ভাবে কোন মানুষকে হত্যা করা চরম মানবিক অবক্ষয়, এটা কারো জন্য কাম্য নয়।

এ ব্যাপারে থানায় মামলা করা হবে বলে জানান তিনি।

ট্যাগ: Banglanewspaper মাগুরা চোর সন্দেহ প্রতিবন্ধী যুবককে পিটিয়ে হত্যা