banglanewspaper

সাভার প্রতিনিধি: বাসে হিন্দু তরুণী ধর্ষণ ও চালক হত্যা মামলার প্রধান আসামি রুবেল (২৫) পুলিশের সঙ্গে ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছে। সাভারের আশুলিয়ার টঙ্গাবাড়িতে পুলিশের সঙ্গে এই ক্রসফায়ারের ঘটনা ঘটে।

আজ শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে আশুলিয়ার টঙ্গাবাড়ি এলাকায় রুবেলকে আটক করতে গেলে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে গুলি ছোড়ে রুবেল। পরে পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে গুলিবিদ্ধ হন তিনি। নিহত রুবেল টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল থানার লক্ষীন্দর গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে।

এ ঘটনায় পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) উপপরিদর্শক (এসআই) ও তিন কনস্টেবল আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে গুলি ও আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

গত ১৩ ফেব্রুয়ারী ভোরে টাঙ্গাইল থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা ইনসাফ পরিবহনের ‘ধলেশ্বরী’ নামের একটি বাসে ধর্ষণ, ডাকাতি ও চালককে হত্যার ঘটনাটি ঘটে।

আশুলিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খোরশেদ আলম জানান, ঘটনার দিন টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর এলাকায় পৌছালে যাত্রীবেশে ১৩ ডাকাত বাসে ওঠে। বাসটি নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কে ওঠামাত্র ডাকাতরা লুটপাট শুরু করে। এ সময় হিন্দু এক তরুণীকে তার মায়ের সামনেই ধর্ষণ করে ডাকাতরা।

এ সময় চালকের আসন থেকে নেমে এসে প্রতিবাদ জানালে ডাকাতদের ছুরিকাঘাতে মারা যান বাস চালক চালক শাহজাহান মিয়া। গুরুতর আহত হন হেলপার বাদশা মিয়া।

এ ঘটনায় আটক করা হয় ১২ ডাকাতকে। আদালতে দেয়া জবানবন্দীর ভিত্তিতে মূল হোতা হিসেবে নাম উঠে আসে রুবেলের।

আশুলিয়া থানার এসআই আহাদ সাংবাদিকদের জানান, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হচ্ছে। এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান এসআই আহাদ।

ট্যাগ: Banglanewspaper মায়ের সামনে তরুণীকে ধর্ষণ প্রধান আসামী ক্রসফায়ার আশুলিয়া সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খোরশেদ