banglanewspaper

মনিরুল ইসলাম মনি: ‘এভিকালচারাল সোসাইটি অব বাংলাদেশ’ এর আয়োজনে জাতীয় প্রেসক্লাবের মিডিয়া কমপ্লেক্স মিলনায়তনে দুইদিন ব্যাপী বিদেশী পাখি প্রদর্শনীর আজ ছিল শেষ দিন। এবারে ছিলো ৯ম তম প্রদর্শনী।

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া দুই দিন ব্যাপী বিদেশী পাখি প্রদর্শনীর শেষ দিন আজ শুক্রবার ছিলো দর্শনার্থীদের দারুণ সাড়ায় মুখরিত। একসাথে এতো সংখ্যক বিদেশী পাখি কখনো দেখা যায় না সচরাচর। যেটা দেখার সুব্যবস্থা করে দিয়েছে ‘এভিকালচারাল সোসাইটি অব বাংলাদেশ’ নামক সংস্থাটি। তবে প্রদর্শনে বিদেশী পাখি থাকলেও দেশীয় পাখিদের প্রতিও ভালোবাসার কমতি ছিল না। যা বাইরের স্লোগানগুলোই প্রমাণ করে দেয়।

‘এভিকালচারাল সোসাইটি অব বাংলাদেশ’ এর সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. আমজাদ হোসেন চৌধুরী বাংলাদেশ নিউজ আওয়ারকে বলেন, আমাদের ৯ম তম বিদেশী পাখি প্রদর্শনীতে প্রায় ৭০ প্রজাতির ৩০০ জোড়া বিদেশী পাখি প্রদর্শন করা হয়েছে। আমাদের এ প্রদর্শনী বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা ৮ টা পর্যন্ত স্থায়ী ছিলো। যথারীতি আজও চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত। 

বিদেশী পাখি প্রদর্শনের পাশাপাশি দেশীয় প্রজাতির পাখিদের প্রতিও ভালোবাসার কথাও বলা হচ্ছে আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে। 

এসময় প্রদর্শনীর বাইরে দেয়ালে দেয়ালে পাখিদের নিয়ে বিভিন্ন সচেতনধর্মী স্লোগান শোভা পাচ্ছে। উল্লেখ্যযোগ্য হৃদয় ধাঁধানো স্লোগানগুলো হচ্ছে ‘আসুন আমাদের পাখির রাজ্যে পরিচিত হউন অপূর্ব সুন্দর এই জগতের সাথে।’ 

খাঁচায় পাখি পোষা দোষের কিছু নয় উল্লেখ করে সংগঠনটির যুক্তিযুক্ত একটি স্লোগান হচ্ছে ‘যে খাঁচায় পোষা পাখি ভালোবাসে, সে কখনো বনের পাখি হত্যা করতে পারে না।’

পাখি যে অনিন্দ্য ও সুন্দর হতে পারে, তারই একটি নমুনা হলো- ‘যিনি জীবনে কোনদিন একটি চোখ ফোটা পাখির ছানা দেখেননি, তিনি একটি সুন্দর দৃশ্য থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।’

পাখিরা সুন্দর। তারাও ভালোবাসার প্রতীক। তাদেরকে আর হত্যা নয়- এমনটিই জানালেন প্রদর্শনীতে আসা এক পাখিপ্রেমী জয়ন্ত রায় লিটু। তিনি বলেন, রাজধানী ঢাকাতে পাখি তো প্রায় ডুমুরের ফুল। যে দু’একটি দেখা যায়। সেটিও মুহূর্তেই কর্পুরের মতো উবে যায়। আসুন আমরা পাখিকে ভালোবাসি। তাদেরকে তাদের মতো বাঁচতে দিই। 

তবে প্রদর্শনীতে ৭০ প্রজাতির পাখি থাকলেও পাখিপ্রেমীদের নজর নির্দিষ্ট কিছু পাখিদের দিকেই। যেসব পাখিদের দিকে মানুষের বেশি নজর; তাদের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার কোকোলাইস, জাপানের ম্যান্তারিন বার্ড, সাউথ কোরিয়া সান ক্রিউ, স্ক্রাউলেট ম্যাউ অন্যতম।

আগামিতে দেশী-বিদেশী পাখিদের বাহারি মেলা দেখার প্রত্যাশাও ব্যক্ত করেছেন আগত পাখিপ্রেমীরা। বাংলাদেশের আকাশ জুড়ে নীলের দোলাচলে আবারো মেলবে হাজারো পাখির পাখির রঙিন ডানা- এমনটিই প্রত্যাশা সবার। 

প্রিয় পাঠক আরো কিছু বিদেশী পাখির ছবি দেখুন:

......................

......................

......................

......................

 

ট্যাগ: Banglanewspaper জাতীয় প্রেসক্লাব বিদেশী পাখি