banglanewspaper

শ্রীলঙ্কাকে শুরুতে ২১৪ রানের বিশাল সংগ্রহ জমা করতে দেখে বাংলাদেশের জয়ের আশা হয়তো ছেড়েই দিয়েছিলেন অনেকে। কিন্তু অসাধারণ ব্যাটিং করে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে গেছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। ৫ উইকেটের দুর্দান্ত এক জয় পেয়েছে মাহমুদউল্লাহর দল। ৩৫ বলে ৭২ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছেন মুশফিকুর রহিম।

শ্রীলঙ্কার করা ২১৪ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই দাপুটে নৈপুণ্য দেখিয়েছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন দাসের ঝড়ো ব্যাটিং করে উদ্বোধনী জুটিতেই জমা করেছিলেন ৭৪ রান। প্রথম ১০ ওভারের মধ্যে অবশ্য দুজনেই ফিরেছেন সাজঘরে। ষষ্ঠ ওভারে দলীয় ৭৪ রানের মাথায় বাংলাদেশ হারিয়েছিল প্রথম উইকেট। ১৯ বলে ৪৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে ফিরেছিলেন লিটন। দশম ওভারে সাজঘরের পথে হেঁটেছেন তামিম। তিনি খেলেছেন ২৯ বলে ৪৭ রানের ইনিংস।

তৃতীয় উইকেটে ৫১ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের পথে আরও খানিকটা এগিয়ে দিয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম ও সৌম্য সরকার। ১৫তম ওভারে সৌম্য ফিরেছিলেন ২৪ রান করে। মাহমুদউল্লাহর ব্যাট থেকে এসেছে ২০ রান। আর ৩৫ বলে ৭২ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে গেছেন মুশফিক। শেষপর্যন্ত অপরাজিতই ছিলেন সাবেক এই অধিনায়ক।

এর আগে ম্যাচটিতে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং ঝড় শুরু করেন লঙ্কান দুই ওপেনার। উদ্বোধনী জুটিতে ৪.২ ওভারেই ৫৬ রান তোলেন তারা। তবে বাধা হয়ে দাঁড়ান পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। দানুষ্কা গুনাথিলাকাকে বোল্ড করে মোটামুটি স্বস্তি এনে দেন দলে।

কিন্তু সেই স্বস্তিতে ফের দীর্ঘশ্বাসে পরিণত করেন মেন্ডিস ও পেরেরা। দুজন মিলে দলীয় সেঞ্চুরি পার করেন। আর সে মুহূর্তে বল হাতে আসেন পার্টটাইম বোলার রিয়াদ-সৌম্য। এসেই ম্যাজিক দেখান রিয়াদ। তুলে নেন মেন্ডিসের উইকেট।  যদিও ততক্ষণে ব্যক্তিগত অর্ধশতক পাড়ি দিয়ে ফেলেছেন তিনি।  

শেষের দিকে উইকেট পতনের মাঝেও ঠিকই ব্যাটিং ঝড় চালিয়ে যান পেরেরা-থারাঙ্গা। মূলত টপঅর্ডার ও লোয়ার অর্ডারের থারাঙ্গার কল্যাণে বড় সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় লঙ্কানরা। 

ম্যাচটিতে বাংলাদেশের মুস্তাফিজ তিনটি, মাহমুদউল্লাহ দুটি এবং তাসকিন একটি উইকেট লাভ করেন।

শ্রীলংকা: ২০ ওভারে ২১৪/৬ (কুশল পেরেরা ৭৪,মেন্ডি ৫৭, থারাঙ্গা ৩২*, গুনাথিলাকা ২৬; মোস্তাফিজ ৩/৪৮, মাহমুদউল্লাহ ২/১৫)।

বাংলাদেশ: ১৯.৪ ওভারে ২১৫/৫ রান (মুশফিক ৭২*, তামিম ৪৭, লিটন ৪৩, সৌম্য ২৪, মাহমুদউল্লাহ ২০; নুয়ান প্রদীপ ২/৩৭)।

ফল: বাংলাদেশ ৫ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচ সেরা: মুশফিকুর রহিম (বাংলাদেশ)।

ট্যাগ: banglanewspaper বাঘ সিংহ