banglanewspaper

স্ত্রী ঘরে ঢুকতে না দেয়ায় বাড়ির সামনেই অনশনে বসেন প্রবীর সাহা নামে এক ব্যক্তি।

প্রবীর সাহা নামের ওই ব্যক্তি ছিলেন একটি বেসরকারি অর্থ লগ্নি সংস্থার এজেন্ট। তার সব সম্পত্তি একসময় স্ত্রীর নামে করে দেন প্রবীর। একপর্যায়ে বসতবাড়িটিও স্ত্রীর নামে লিখে দেন তিনি। কিন্তু এখন সেই তাকেই ঘরে ঢুকতে দিচ্ছেন না স্ত্রী- এমন দাবি তার।

তিনি বলেন, ‘গচ্ছিত টাকা দিয়ে পাওনাদারদের বকেয়া মিটিয়েছি। তিন তলা বাড়ি, দোকান কিনেছিলাম। স্ত্রীর নামে করে দিয়েছিলাম। সোনার গয়নাও ছিল। সব নিজের নামে হওয়ার পর ও আমাকে বাড়িতে থাকতে দিচ্ছে না। তখনই অনশনে বসি।’

শিলিগুড়ির সূর্যসেন কলোনির সামনে রীতিমত ব্যানার টানিয়ে রোববার অনশনে বসেন তিনি। খবর পেয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর তৃণমূলের কৃষ্ণ পাল ও পুলিশের সদস্যরা চলে আসেন। এরপর তাদের মধ্যস্থতায় প্রবীর অনশন ভাঙেন। তার স্ত্রীও বাড়িতে ঢুকতে দেন তাকে।

তবে পুরো বিষয়টিকে নিজেদের ব্যক্তিগত দাবি করে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তার স্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘এটা পুরোপুরি পারিবারিক ঘটনা। বাইরের কাউকে কিছু বলব না। যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার, বাড়ির লোকের সঙ্গে কথা বলেই নেব।’  

সূত্র : আনন্দবাজার

ট্যাগ: banglanewspaper স্বামী অনশন