banglanewspaper

রাবি প্রতিনিধি: সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা সংস্কারসহ ৫ দফা দাবি জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোডে এক মানববন্ধনে এ দাবি জানান তাঁরা।

‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যের ঠাঁই নাই, কোটা পদ্ধতির সংস্কার চাই’ শিরোনামের ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা পাঁচ দফা দাবি জানায়। 

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো- কোটা সংস্কার করে ৫৬ থেকে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনা, কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পেলে শূন্য পদগুলোতে  মেধায় নিয়োগ  দেওয়া, চাকরির পরীক্ষায়  কোটা সুবিধা একাধিকবার ব্যবহার বাতিল, কোটায় বিশেষ নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল এবং চাকরির ক্ষেত্রে সবার জন্য অভিন্ন বয়সসীমা নির্ধারণ করা।

এসময় বক্তারা বলেন, ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ত্রিশ ভাগ এবং নারীদের জন্য দশ ভাগ কোটা ব্যবস্থা চালু করেন। এরপর ১৯৯৭ সালে বিরোধী দল আগামী দশ বছরের মধ্যে কোটারীতি সংস্কারের ঘোষণ দিলেও এখনও তা বাস্তবায়ন করেননি। বর্তমানে দেশের অধিকাংশ মানুষের দাবি কোটা পদ্ধতি সংস্কার করা। কোটা পদ্ধতি সংস্কার না করলে জাতির বৃহৎ একটি অংশ অবহেলিত হবে।

কোটা সংস্কার না হওয়ায় রাষ্ট্র যোগ্য জনবল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ও  দেশের সার্বিক উন্নয়ন ব্যহত হচ্ছে। ৫৬ ভাগ কোটা থাকায় আমরা ২৬ লাখ বেকার আজ রাস্তায় দাঁড়িয়েছি। আমরা বার বার ভাইভা দিয়েও চাকরি পাচ্ছি না। কিন্তু  কোটা থাকায় তারা একবার ভাইভাা দিয়েই চাকরিতে প্রবেশ করছে। এতে করে দেশের মেধার মূল্যায়ণ হচ্ছে না। কোটার কারণে দেশ মেধাশূন্য হচ্ছে। কোটা সংস্কার করে দেশের উন্নয়নের পথকে সুগম করতে প্রধানমন্ত্রীর নিকট আমরা এই আহ্বান জানাই।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন,বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রাশিদুল ইসলাম মুবিন, গোলাম মোরশেদ, ফিরোজ হোসেন, ফজলে হোসেন রাব্বি প্রমুখ।

মানববন্ধনে বিভিন্ন বিভাগের সহস্রাধিক সাধারণ শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

উল্লেখ্য ৪ মার্চ থেকে কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে দেশব্যাপী  মানবন্ধন করে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

ট্যাগ: Banglanewspaper রাবি শিক্ষার্থী