banglanewspaper

অনেকে বলে চুমু খাওয়া একটা আর্ট। যত্রতত্র যেভাবে খুশি চুমু খেলে গার্লফ্রেন্ড খারাপ ভাবতে পারে। কথাটা কিন্তু একেবারে উড়িয়ে দেওয়ার মতো নয়। সত্যি সত্যি যদি আপনি ঠিক করে চুমু না খেতে পারেন, তাহলে কিন্তু রাধিকার গোঁসা হবে। আর সেই মানভঞ্জন করতে আপনারই হবে গলদঘর্ম দশা।

তোমায় ছুঁতে চাওয়ার মুহূর্তরা
প্রথমে আপনাকে সেই "মুহূর্ত" খুঁজে বের করতে হবে। বিশেষত যদি প্রেমিকাকে প্রথম চুমু হয়। সে যখন হোস্টেল বা বাড়ির সমস্যা নিয়ে আপনার সঙ্গে আলোচনা করছে, তখন ভুলেও চুমুর ধারকাছ দিয়ে যাবেন না। বন্ধুর বিরুদ্ধে আপনাকে অভিযোগ করছে? তাহলেও ধৈর্য ধরুন। কথা যখন শেষ, সে ইমোশনাল, তখন একবার ট্রাই করতেই পারেন। তবে তার আগে অবশ্যই পরিস্থিতি দেখে নিন। চুমু খাওয়ার সবচেয়ে রোম্যান্টিক জায়গা হল লাইব্রেরির কোণা। বই খুঁজতে গিয়ে হালকা করে ঠোঁটে ঠোঁট। আর কী চাই!

টাচ মি টাচ মি, কিস মি কিস মি
পৃথিবীতে এমন মেয়ের সংখ্যা খুব কম যে এসে আপনাকে বলবে, "কিস মি"। আপনাকেই তার মনের কথা জানতে হবে। এটা ঠিক মেয়েদের মন পড়া শক্ত। কিন্তু চেষ্টায় কী না হয়। মুড তৈরি করুন। প্রশংসা আপনার হাতিয়ার হতে পারে। প্রশংসা শুনতে কার না ভালো লাগে। সেটাকে ভিত্তি করে আপনি পৌঁছে যেতে পারেন চুমুর দুয়ারে। সরাসরি বলুন, চুমু খেতে চান। আশাকরি প্রেমিকা না বলবে না। উলটে আপনার ইম্প্রেশন জমে যাবে।

চোখে চোখে কথা বল
কনফিডেন্স। মেয়েরা এটা খুব বেশি রকম পছন্দ করে। তাই সরাসরি তার চোখের দিকে তাকান। তখন কিন্তু সেও আপনার চোখের দিকেই তাকাবে। মনের ভাব প্রকাশ করার এর চেয়ে আর ভালো উপায় হতে পারে? চোখে চোখেই বলে নেওয়া যায় অনেক অব্যক্ত কথা। প্রথম প্রথম অস্বস্তি হতে পারে। কিন্তু Practice makes a man perfect.

এসে এভাবে মিলব দুজনে
এই পর্যায়গুলো যদি আপনি কাটিয়ে ফেলতে পারেন, তাহলে পরীক্ষায় আপনি পাশ করে গিয়েছেন। এবার ফাইনাল পরীক্ষা। প্রথমেই জড়িয়ে ধরে ফরাসি কায়দায় চুমু খেতে যাবেন না। হালকা, মোলায়েমভাবে চুমু খান। যদি সে ঠোঁট সরিয়ে নেয়, চাপ দেবেন না। সময় দিন। কষ্ট করলে তবেই না কেষ্ট মেলে!

তবে এখানেই কিন্তু থেমে যাবেন না। যদি আপনি সত্যিই চুমু উপভোগ করেন, তাকে জানান। কীভাবে? তা সম্পূর্ণ আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার। কিন্তু যদি খারাপ লাগে, তাহলে কিন্তু ভুলেও জানাবেন না। ধৈর্য্য ধরুন। ওই যে, Practice makes a man perfect.

খবরদার! ভরপেট খাবার খেয়ে একদম চুমু খেতে যাবেন না। মুখ থেকে যদি পেঁয়াজের গন্ধ ছাড়ে, তাহলে প্রেমিকা ছুটে পালাবে। চুমুর ইচ্ছায় সোজা ঠান্ডা জল। আপনার শ্বাস যেন থাকে ফ্রেশ। চুমু খাওয়ার আগে তৈরি হন। ব্রাশ করে নিন। দরকার হলে মাউথওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন। তাও যদি না হয়, অন্তত পকেটে চুইনগাম রাখুন।

কখনও প্রেমিকাকে জোরে জড়িয়ে ধরবেন না। এতে প্ল্যান কেঁচে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে। ভুল জায়গায় ভুলভাবে ধরলে মেয়েরা সোজা তাকে বাতিলের খাতায় ফেলে দেয়। এর পরিবর্তে আপনি তার কাঁধে হাত রাখতে পারেন। এতে সে স্বস্তি অনুভব করবে। নিজেকে নিরাপদ ভাববে। তাতে আখেরে লাভ আপনারই।

জিহ্বা যুদ্ধ এড়িয়ে যান। অন্তত প্রথম বারের জন্য। হালকা চুমু খান। একে বিশ্বাস ও বিশ্বস্ততা, দুইই বাড়ে।

ট্যাগ: banglanewspaper সাংবাদিক