banglanewspaper

মনির হোসেন জীবন, নিজস্ব প্রতিনিধি: বন্ধুরা মিলে অপহরনের নাটক সাজিয়ে ফয়সালের বাবার কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা সাজায়। কিন্তু বন্ধুদের এমন পরিকল্পনায় রাজি না হওয়ায় শ্বাসরোধে হত্যা করা হয় সাভারের কলেজ ছাত্র মাহমুদুর রহমান ফয়সাল (২০) কে।

ঘটনার সাথে জড়িত আটককৃত রাজু ও আকাশ পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রদান করেছে। সাভার সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. খোরশেদ আলম সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

এদিকে, সাভারের হেমায়েতপুরে কলেজ ছাত্র ফয়সাল খুনের ঘটনায় জড়িতদের ফাঁসির দাবীতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী।

বুধবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ময়নাতদন্ত শেষে নিহত ফয়সালের মরদেহ বহনকারী অ্যাম্বুলেন্স সাভারের হেমায়েতপুরে পৌঁছালে বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী ফয়সালের মরদেহ নিয়ে মহাসড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দোষীদের শাস্তির আশ^াস দিলে বিক্ষুব্ধ জনতা মহাসড়ক থেকে চলে যায়।

নিহত মাহমুদুর রহমান ফয়সাল সাভারের হেমায়েতপুর এলাকার মো. মাসুদ রানার ছেলে এবং সে সাভারের কলেজ এক্স এর একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছিল।

সাভার সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. খোরশেদ আলম জানান, চলতি বছরের ৫ই মার্চ রাতে কলেজ ছাত্র ফয়সাল নিজ বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয়। পরে ফয়সালের বাবা মাসুদ রানা ওরফে ফকির চাঁনের কাছে মুঠোফোনে ৫ লক্ষ টাকা দাবি করা হয়। এ ব্যাপারে ফয়সালের বাবা ফকির চাঁন সাভার থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী (নং-৩০৮) করেন। পরে পুলিশ অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়টি তদন্ত শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে ফয়সালের দুই বন্ধু রাজু ও আকাশকে দিনাজপুরের বিরামপুর থেকে আটক করে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (২০ই মার্চ) রাতে নিখোঁজের ১৬ দিন পর সাভারের তেতুঁলঝোড়া ইউনিয়নের জয়ানাবাড়ী এলাকার বৈদ্যনাথের ইটভাটার পাশে হোসেন আলীর বালুরটেকে বালু চাঁপা দেয়া অবস্থায় ফয়সালের অর্ধগলিত মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। 

জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত ফয়সালের দুই বন্ধুরা জানায় যে তারা ফয়সালকে নিয়ে অপহরনের নাটক সাজিয়ে ফয়সালের বাবার কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা সাজায়। কিন্তু ফয়সাল তাদের পরিকল্পনায় রাজি না হওয়ায় তাকে সেখানেই শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বালু চাঁপা দেয়া হয় বলে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছে গ্রেফতারকৃত দুইজন। 

এএসপি খোরশেদ আলম আরো জানান, ফয়সাল হত্যাকান্ডের সাথে আরও যারা জড়িত রয়েছে তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

গ্রেফতারকৃত রাজু ও আকাশ তারা দুইজনই রাজধানীর হাজারীবাগে চামড়া কারখানায় কাজ করতো। এদের মধ্যে রাজু সাভারের হোময়েতপুরের আইয়ুব আলীর ছেলে এবং আকাশের গ্রামের বাড়ি দিনাজপুরের বিরামপুরে বলে জানা গেছে।

ট্যাগ: Banglanewspaper অপহরণ নাটক ফয়সাল হত্যা