banglanewspaper

ডেস্ক রিপোর্ট: বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগ স্বীকার করে নিয়ে জানিয়েছিলেন এর জন্য অনুতপ্ত স্মিথরা। তবে ম্যাচ চলাকালীন সময়েই অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয় স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারকে। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি এই ঘটনায় একটি টেস্ট থেকে নিষিদ্ধ করে স্মিথকে। জরিমানা করা হয় তার ম্যাচ ফি। ব্যানক্রফটকে নিষেধাজ্ঞা না দিলেও করা হয় ম্যাচ ফির ৭৫ শতাংশ জরিমানা।

আইসিসি শাস্তি দিলেও আলাদা করে তদন্ত শুরু করে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড। তদন্ত শেষে বল বিকৃতির ঘটনায় নিষিদ্ধ করা হয়েছে দলের অধিনায়ক স্টিভ স্মিথসহ অন্য দুই ক্রিকেটার ডেভিড ওয়ার্নার ও ক্যামেরন ব্যানক্রফটকে। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এই তিন ক্রিকেটারকে নিষিদ্ধ করার কথা জানিয়েছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সাদারল্যান্ড। অবশ্য তাদের কত দিনের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে তা জানানো হবে আজ (বুধবার)।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী সংবাদ সম্মেলনে আরও জানিয়েছেন, এই তিন ক্রিকেটার ছাড়া আর কেউই বল বিকৃতির পরিকল্পনার কথা যে জানতেন না, সে বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছেন তদন্তকারী দল।

এদিকে স্মিথের বদলে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের শেষ টেস্টে অস্ট্রেলিয়াকে নেতৃত্বে দেবেন টিম পেইন। বাকি দুজনের জায়গায় দেশ থেকে ডেকে পাঠানো হয়েছে ম্যাট রেনশো, জো বার্নস ও অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে।

সদ্য সমাপ্ত কেপটাউন টেস্টের তৃতীয় দিনে দ্বিতীয় সেশনের সময় বিতর্কিত ঘটনাটি ঘটায় অস্ট্রেলিয়া। টিভিতে ধরা পড়ে, হলুদ কাপড়ের মত কিছু একটা পকেট থেকে বের করেছিলেন ব্যানক্রফট। পরে সেটি লুকানোর চেষ্টা করেন তার ট্রাউজারের ভেতরে। বিষয়টি টিভি আম্পারের দৃষ্টিতে পড়লে তিনি মাঠে থাকা আম্পায়ারদের খোঁজ নেয়ার নির্দেশ দেন। তবে এখানেও চালাকি করেন বেনক্রফট। পকেট থেকে একটা কালো কাপড় বের করে দেখান, সানগ্লাস মোছার জন্য তিনি এটাকেই বের করেছিলেন।

ট্যাগ: Banglanewspaper বল টেম্পারিং স্মিথ ওয়ার্নার ব্যানক্রফট নিষিদ্ধ